ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

লেনদেনে ধীরগতি

লেনদেনে ধীরগতি

নিজস্ব প্রতিবেদক : সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার শেয়ারবাজারে লেনদেনের শুরুতে কিছুটা ধীরগতি দেখা দিয়েছে। প্রথম আধাঘণ্টায় প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দেড়’শ কোটি টাকার কম লেনদেন হয়েছে। গতকাল প্রথম আধাঘণ্টায় ২০০ কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছিল।

লেনদেনে ধীরগতি দেখা দেয়ায় পাশাপাশি মূল্য সূচকেও নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ও বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ দুটি সূচকই ঋণাত্মক হয়ে পড়েছে।

অবশ্য লেনদেনে অংশ নেয়া যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে এখনও তার থেকে বেশি প্রতিষ্ঠান দাম বাড়ার তালিকায় রয়েছে।

এদিন শেয়ারবাজারে লেনদেন চালু হতেই অংশ নেয়া প্রায় সবকটি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ে। এতে ৫ মিনিটেই ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ২০ পয়েন্টের ওপরে বেড়ে যায়।

কিন্তু লেনদেনের সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে কিছু প্রতিষ্ঠান দাম কমার তালিকায় নাম লেখায়। ফলে লেনদেনের শুরুতে বড় উত্থানের আভাস দিলেও আধাঘণ্টার মধ্যে সূচক ঋণাত্মক হয়ে পড়ে।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সকাল ১০টা ৩৬ মিনিটে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ২ পয়েন্ট কমেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক ৩ পয়েন্ট কমেছে। আর ডিএসই শরিয়াহ্ কমেছে দশমিক ৭৩ পয়েন্ট।

এ সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৪৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১০৪টির। আর ৭৩টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ১৫৩ কোটি ৫২ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ২ কোটি ৬২ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ১০৮ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৫১টির, কমেছে ৩১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির।

Facebook Comments