ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

দিল্লী দাঙ্গার ১৭,০০০ পৃষ্ঠার চার্যশিটে শুধু সিএএ-বিরোধীদের নাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে ভারতের রাজধানী দিল্লীতে যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হয়েছে তা নিয়ে বিশাল এক চার্যশিট জমা দিয়েছে পুলিশ। এতে ১৫ ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হলেও এদের কেউই দাঙ্গায় জড়িত নন। এরা সবাই বিজেপি সরকারের বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে আন্দোলনকারী। ওই দাঙ্গায় ৫০ জনের বেশি মানুষ মারা যায়, যাদের বেশিরভাগ মুসলমান। এছাড়া কোটি কোটি টাকার সম্পত্তিও ধ্বংস করে দাঙ্গাকারীরা।

দুটি স্টিলের ট্রাঙ্কে ভরে ১৭,৫০০ পৃষ্ঠার এই চার্যশিট আদালতে দাখিল করা হয়। এর ২,৬০০ পৃষ্ঠায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগের ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়। এছাড়া কয়েক হাজার পৃষ্ঠার পরিশিষ্ট রয়েছে। যারা কঠোর সন্ত্রাস-দমন অবৈধ তৎপরতা (প্রতিরোধ) আইনের আওতায় রয়েছে তাদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ আনা হয়েছে।

এদের মধ্যে রয়েছেন বরখাস্ত হওয়া এএপি কাউন্সিলর তাহির হোসাইন ও অনেক ছাত্র এক্টিভিস্ট। পুলিশ জানায় যে এই মামলায় তাদের তদন্ত শেষ হয়নি। সম্পূরক চার্যশিটে আরো অনেকের নাম যোগ হতে পারে।

পুলিশ আদালতকে বলে, ফেব্রুয়ারিতে উত্তর-পূর্ব দিল্লীর দাঙ্গাকারীদের সঙ্গে এসব ষড়যন্ত্রকারীর প্রত্যক্ষ যোগাযোগ রয়েছে। বলা হয়, দুটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ সিলামপুর ও জাফরাবাদের দাঙ্গা বাধায়। এই দুই জায়গার দাঙ্গা ছিলো সবচেয়ে ভয়াবহ।

ছাত্ররা ২০ মাইল দূর থেকে পায়ে হেটে এসে দাঙ্গায় অংশ নিয়েছে দাবি করে পুলিশ বলে, ষড়যন্ত্রকারীরা দাঙ্গার পরিকল্পনা করে। আর এলাকার মধ্য সারির নেতারা তা বাস্তবায়ন করে।

সিএএ-বিরোধী বিক্ষোভ সম্পর্কে পুলিশ বলে, শুরু থেকেই এটা কোন গণতান্ত্রিক বিক্ষোভ ছিলো না। সহিংসতা উষ্কে দিতে এই বিক্ষোভ শুরু করা হয়। পুলিশ আদালতকে বলে যে রোডব্লক হলো বিক্ষোভের অগণতান্ত্রিক উপায় এবং তা সহিংসতা উষ্কে দিতে করা হয়।

Facebook Comments