ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ২৪ নভেম্বর ২০২০

এক সপ্তাহে বেড়েছে ৮ নিত্যপণ্যের দাম

এক সপ্তাহে বেড়েছে ৮ নিত্যপণ্যের দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক:  গত এক সপ্তাহে নিত্যপ্রয়োজনীয় ৮ পণ্যের দাম বেড়েছে। এর মধ্যে রয়েছে- চাল, ডাল, পেঁয়াজ, রসুন, ব্রয়লার মুরগি, জিরা, এলাচ এবং আলু। সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বংলাদেশ’র (টিসিবি) প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।
গত এক সপ্তাহে দাম বাড়া প্রতিটি পণ্যের দাম লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকেই কয়েক দফা উত্থান পতন হয়েছে। লকডাউনের কারণে গত মার্চে সবগুলো পণ্যের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায়। এরপর থেকে চাহিদা কমলে মাঝে মধ্যে দাম কিছুটা কমেছে, তবে চাহিদা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আবার দাম বেড়ে যাচ্ছে। গত তিন মাস ধরে এ অবস্থায় চলছে।

গত এক সপ্তাহে সব থেকে বেশি দাম বেড়েছে দেশি পেঁয়াজের। টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, এক সপ্তাহে দেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ। বর্তমানে এই পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৬০ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০ থেকে ৪৫ টাকা।

দেশি পেঁয়াজের পাশাপাশি দাম বেড়েছে আমদানি করা পেঁয়াজের। এক সপ্তাহে আমদানি করা পেঁয়াজের দাম ৫ শতাংশ বেড়ে কেজি ২৮ থেকে ৩৫ টাকা হয়েছে, যা আগে ছিল ২৫ থেকে ৩৫ টাকা।

টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, চিকন, মাঝারি, মোটা সব ধরনের চালের দাম গত এক সপ্তাহে বেড়েছে। বর্তমানে নাজির ও মিনিকেট চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫৪ থেকে ৬৮ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৫২ থেকে ৬৪ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে এই দুই ধরনের চালের দাম বেড়েছে ৫ দশমিক ১৭ শতাংশ।

মাঝারি মানের চাল পাইজাম ও লতার দাম সপ্তাহের ব্যবধানে ৪ দশমিক ১৭ শতাংশ বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৫৫ টাকা, যা আগে ছিল ৪৪ থেকে ৫২ টাকা। আর মোটা চালের দাম বেড়েছে ২ দশমিক ৪৭ শতাংশ। বর্তমানে মোটা চালের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৮ থেকে ৪৫ টাকা, যা আগে ছিল ৩৬ থেকে ৪৫ টাকা।

ঈদের আগে অস্বাভাবিক দাম বেড়ে ১৯০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া ব্রয়লার মুরগির চাহিদা কমায় ঈদের পর আবার ১৩০ টাকায় নেমে আসে। তবে এখন আবার ব্রয়লার মুরগির দাম বাড়তে শুরু করেছে। এক সপ্তাহে ব্রয়লার মুরগির দাম ১৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেড়ে কেজি ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা হয়েছে, যা আগে ছিল ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা।

এক সপ্তাহ আগে ৯০ থেকে ১১০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া দেশি রসুনের দাম ১৫ শতাংশ বেড়ে ১০০ থেকে ১৩০ টাকা হয়েছে। আলুর দাম এক সপ্তাহে বেড়েছে ১০ দশমিক ৭১ শতাংশ। ২৬ থেকে ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া আলুর দাম বেড়ে ৩০ থেকে ৩২ টাকা হয়েছে।

দাম বাড়ার এ তালিকায় রয়েছে মাঝারি দানার মসুর ডাল। এক সপ্তাহে দাম বেড়েছে ২ দশমিক ৪৪ শতাংশ। ৯৫ থেকে ১১০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া মাঝারি দানার মসুর ডালের দাম বেড়ে ১০০ থেকে ১১০ টাকা হয়েছে।

লকডাউনের প্রকোপের শুরুতে অস্বাভাবিক দাম বাড়া জিরা ও এলাচের দাম ঈদের পর কিছুটা কমলেও এখন আবার বাড়তে শুরু করেছে। টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, এক সপ্তাহে জিরার দাম দাম ৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ বেড়ে কেজি ৩৮০ থেকে ৪৫০ টাকা হয়েছে। আর এলাচের দাম ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ বেড়ে কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৬০০ থেকে ৩৮০০ টাকা।

এদিকে গত এক সপ্তাহে দেশি ও আমদানি করা উভয় ধরনের আদার দাম কিছুটা কমেছে বলে জানিয়েছে টিসিবি। প্রতিষ্ঠানটির তথ্য অনুযায়ী, দেশি আদার দাম ৭ দশমিক ৪১ শতাংশ কমে কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা। আর আমদানি করা আদার দাম ৬ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ কমে ১৪০ থেকে ১৭০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

Facebook Comments