ইয়াওমুল ইসনাইন (সোমবার), ২৫ মে ২০২০

লকডাউন: শিশুদের বাইরে খেলার অনুমতি দেবে স্পেন

লকডাউনে দিনে ক্ষতি ৩৩০০ কোটি টাকা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনার কারণে প্রায় পাঁচ সপ্তাহ ধরে ঘরে অবরুদ্ধ স্পেনের শিশুরা। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস মানুষ থেকে মানুষে সহজেই ছড়িয়ে পড়ায় বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দেশটির সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ফলে কমে গেছে শিশুদের শারীরিক পরিশ্রম, মানসিক স্বাস্থ্যের ওপরও পড়ছে নেতিবাচক প্রভাব। এ কারণে আগামী ২৭ এপ্রিল থেকে শিশুদের জন্য লকডাউনের বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ।

শনিবার রাতে টেলিভিশনের এক ভাষণে সানচেজ বলেছে, ‘আগামী ২৭ এপ্রিল থেকে তারা (শিশু) যেন দিনের কিছুটা সময় ঘর ছেড়ে মুক্ত হাওয়া উপভোগ করতে পারে, সেই প্রস্তাব রাখা হবে।’

তবে ঠিক কতটা সময় শিশুরা বাইরে থাকতে পারবে তা উল্লেখ করেনি সে এবং বিষয়টি কীভাবে বাস্তবায়িত হবে সে সম্পর্কেও কিছু জানাননি। স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, ১২ বছরের কম বয়সী শিশুরাই শুধু বাইরে খেলাধুলার সুযোগ পাবে।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী জানায়, সে নিষেধাজ্ঞা শিথিলের বিষয়ে আঞ্চলিক নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন এবং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুসরণ করবেন।

স্পেনে এ পর্যন্ত প্রায় দুই লাখ মানুষ নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ২০ হাজারেরও বেশি। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ১৪ মার্চ থেকে লকডাউন জারি করা হয়েছে সেখানে। এতে বেশ বিপাকেই পড়েছে দেশটির ৮০ লাখ শিশু।

স্প্যানিশ চিলড্রেনস রাইটস কোয়ালিশন সতর্ক করে জানিয়েছে, লকডাউনের কারণে বাইরে খেলাধুলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

ইউরোপের অন্য দেশগুলোর মধ্যে ডেনমার্ক ইতোমধ্যেই অনূর্ধ্ব-১১ বয়সীদের জন্য স্কুল খুলে দিয়েছে। আগামী সোমবার থেকে স্কুল চালু হচ্ছে নরওয়েতে। ৪ মে থেকে স্কুল খোলার প্রস্তুতি নিচ্ছে জার্মানিও। সুইডেন লকডাউনের মধ্যেই স্কুলের কার্যক্রম চালিয়ে গেছে। অবশ্য এসব দেশের কোনওটাতেই করোনার ভয়াবহতা স্পেনের মতো নয়।

সূত্র: বিবিসি

Facebook Comments