ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ২৯ মার্চ ২০২০

হজযাত্রী নিবন্ধন: জমা পড়েছে ৮ হাজার ৩০০ পাসপোর্ট

নিউজ ডেস্কঃ  চলতি বছর হজের আনুষ্ঠানিক নিবন্ধন কার্যক্রম গতকাল শুরু হয়েছে। ২-৩ মার্চ সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় চূড়ান্ত নিবন্ধনের জন্য সর্বমোট ৮ হাজার ৩০০ হজযাত্রীর পাসপোর্ট জমা পড়েছে। এসব পাসপোর্ট ভেরিফিকেশন শেষে টাকা জমার মধ্যমে নিবন্ধন সম্পন্ন হবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একটি দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, গত দু’দিনে জমাপড়া পাসপোর্টগুলোর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৮৬ জন (প্যাকেজ-১ এর) হজ গমনেচ্ছুদের টাকা জমা শেষে নিবন্ধন সম্পন্ন হয়। অপরদিকে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশন শেষে ১২টি এজেন্সির ১৩১ জন যাত্রীর নিবন্ধন সম্পন্ন হয়।

চূড়ান্ত এ নিবন্ধন চলবে আগামী ১৫ মার্চ পর্যন্ত। প্রাক-নিবন্ধনের ৬ লাখ ১৮ হাজার ২৫৯ ক্রমিক পর্যন্ত নিবন্ধন কার্যক্রম চলবে। অন্যান্য বছর হজের চূড়ান্ত নিবন্ধন কার্যক্রম নিয়ে হজ গমনেচ্ছুদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ ও আলোচনা থাকলেও এবার বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস আতঙ্কে তাতে ভাটা পড়েছে। জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে অনুষ্ঠিতব্য হজে করোনাভাইরাসের প্রভাব পড়বে কিনা তা নিয়ে হজ এজেন্সির মালিকরা দুশ্চিন্তায় পড়েছে।

সৌদি-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক হজ চুক্তি অনুযায়ী এবার বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজ পালনের জন্য সৌদি আরব যাবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার হজে যাবেন।

সম্প্রতি সরকারি ব্যবস্থাপনায় তিনটি হজ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে ৩ লাখ ১৫ হাজার টাকায় তৃতীয় প্যাকেজের আবাসনের বিষয়টি বায়তুল্লাহ শরিফ থেকে দেড় কিলোমিটারের অধিক দূরে (হেঁটে যাতায়াত) হজযাত্রীদের রাখার কথা বলা হয়েছে।

হাব কর্তৃপক্ষও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় দুটি হজ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। প্রথম প্যাকেজ ৩ লাখ ৬১ হাজার ৮০০ টাকায় পবিত্র হারাম শরিফের বাইরের চত্বরের সীমানার ১০০০ থেকে ১৫০০ মিটার দূরত্বে আবাসনের কথা বলা হয়েছে। দ্বিতীয় প্যাকেজ ৩ লাখ ১৭ হাজার টাকায় হজযাত্রীদের পবিত্র হারাম শরিফ থেকে ১৫০০ মিটারের অধিক দূরত্বে আবাসনের ব্যবস্থার কথা বলা হয়েছে।

কুদাই, সৌকিয়া, বাতাকুরাইশ, আজিজিয়া ও জারোয়াল এলাকায় হজযাত্রীদের আবাসনের ব্যবস্থা করা হবে। ২ থেকে ৩০ মার্চের মধ্যে হজ প্যাকেজের পুরো টাকা নিজ নিজ হজ এজেন্সির অ্যাকাউন্টে জমা দিতে বলা হয়েছে।

Facebook Comments