ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

মসজিদে আগমন সীমিত করতে বলায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেককে লিগ্যাল নোটিশ

শরীয়তবিরোধী শর্ত আরোপ করায় ধর্মপ্রতিমন্ত্রীকে লিগ্যাল নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘করোনা প্রতিরোধে মসজিদে মানুষ সীমিত আসাই ভালো’ -এই মন্তব্যের মাধ্যমে মুসলিমদের দ্বীনি অনুভূতিতে আঘাতের দায়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেককে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক আল ইহসান ও মাসিক আল বাইয়্যিনাত পত্রিকার সম্পাদক মুহম্মদ মাহবুব আলমের পক্ষে শনিবার (২১ মার্চ) বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট শেখ ওমর শরীফ রেজিস্টার্ড ডাকযোগে লিগ্যাল নোটিশটি পাঠান।

লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়, গত ১৫ মার্চ ঢাকায় একটি সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছিলো, করোনা প্রতিরোধে মসজিদে মানুষ সীমিত আসাই ভালো।”

নোটিশে বলা হয়, নামাজ সকল মুসলিমের ওপর বাধ্যতামূলক ইবাদত এবং মসজিদে গিয়ে জামায়াতে নামাজ আদায় করাও মুসলিমদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

পবিত্র কুরআন শরীফ ও হাদীস শরীফ থেকে বিভিন্ন উদ্ধৃতি দিয়ে নোটিশে বলা হয়, মহানবী হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম অন্ধ ব্যক্তিকেও জামায়াত পরিত্যাগ করার অনুমতি দেননি। আরেক হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে এসেছে, মহানবী হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জামায়াত পরিত্যাগকারীদের বাড়ি জ্বালিয়ে দেয়ার মতো ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। পবিত্র শরীয়তে যেখানে জামায়াতে নামাজ আদায়ের এত গুরুত্ব দেয়া হয়েছে, সেখানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানুষকে মসজিদে আসতে নিরুৎসাহিত করছে!

নোটিশদাতা বলেন, সাংবিধানিকভাবে যেহেতু বাংলাদেশের রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম, সুতরাং ইসলামী আক্বীদাসমূহ রাষ্ট্র দ্বারা সুরক্ষিত। বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে মুসলিমদের নিজ দ্বীন পালনের অধিকারও রয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী একটি দায়িত্বশীল পদে থেকে এবং সংবিধান সমুন্নত রাখার শপথ নিয়ে মুসলিমদের দ্বীন পালনের অধিকার নিয়ে এমন মন্তব্যে নোটিশদাতা সংক্ষুব্ধ হয়েছেন।

নোটিশে বলা হয়, নোটিশ পাওয়ার ৭ কার্যদিবসের মধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক মসজিদে আগমন সংক্রান্ত মন্তব্যটি প্রত্যাহার করে নিতে হবে এবং পবিত্র দ্বীন ইসলামের অন্যতম ইবাদতকে অবমাননার জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। অন্যথায় নোটিশদাতা আইনের আশ্রয় নেবেন বলে নোটিশে বলা হয়েছে।

Facebook Comments