ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার), ০১ এপ্রিল ২০২০

বিদেশি সফটওয়্যার ব্যবহারে বছরে ৫০০ কোটি টাকা পাচার

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিদেশি সফটওয়্যারের চেয়ে দেশীয় সফটওয়্যার অনেক নিরাপদ বলে মন্তব্য করেছেন খাত সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, বিদেশি পণ্য হলে ভালো, আর দেশীয় হলে খারাপ- এ মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। বাংলাদেশি সফটওয়্যার বিশ্বমানের, তাই দেশীয় সফটওয়্যার ব্যবহারে উৎসাহিত করতে হবে। বিদেশি সফটওয়্যার ব্যবহারে বছরে ৫০০ কোটি টাকা পাচার হয়ে যাচ্ছে। তাই দেশীয় সফটওয়্যার ব্যবহার করে দেশের টাকা দেশেই রাখা উচিত।

গতকাল শনিবার রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ইস্ট-ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের মিলনায়তনে গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এ কথা বলেন।

আলোচনায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. কায়কোবাদ বলেন, কোর ব্যাংকিংয়ে বিদেশি সফটওয়্যার বাবদ বছরে ৫০০ কোটি টাকা পাচার হয়ে যাচ্ছে। সেই টাকা দিয়ে ১০ জনের কর্মসংস্থান হয়। বিদেশি জিনিস পেলেই আমরা পাগল হয়ে যাই। দেশি পণ্য ব্যবহার করবো, দেশের টাকা দেশে রাখবো এমন মনোভাব হওয়া উচিত।

সীমান্ত ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোখলেসুর রহমান বলেন, আশির দশকে যখন বেসরকারি ব্যাংকিং কার্যক্রম শুরু হয় তখন ম্যানুয়েল পদ্ধতি ছিল, ক্যাশ ও হিসাব মিলিয়ে বাসায় যেতে রাত ১২টা বেজে যেত। কিন্তু যখন অনলাইনে কোর ব্যাংকিং পদ্ধতি চালু হলো তখন আমুল পরিবর্তন এসেছে। আমাদের মানসিক পরিবর্তন দরকার। আমরা বাঙালি বিদেশি পণ্যে বিশ্বাস করি, এ মানসিকতার পরিবর্তন দরকার।  ‘বাংলাদেশি সফটওয়্যার অত্যন্ত নিরাপদ। সেটা যদি আমরা ব্যবহার না করি, তাহলে বুঝতে পারবো না। বিদেশি হলে ভালো হবে, দেশি হলে খারাপ হবে, এ মানসিকতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে।’

মূল প্রবন্ধে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) পরিচালক ও ফ্লোরা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা রফিকুল ইসলাম বলেন, ডিজিটাল ব্যাংকিং, আগামীর ব্যাংকিং। এক্ষেত্রে দেশীয় সফটওয়্যারের ব্যবহার করা উচিত।

Facebook Comments