ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ২৮ মে ২০২০

করোনায় উহানেই মারা গেছে কমপক্ষে৪২ হাজার, বাসিন্দাদের স্বীকারোক্তি

ভারতে করোনায় নৌবাহিনীর ২১ সদস্যসহ আক্রান্ত ৯৯২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনাভাইরাসে চীনের উহান শহরেই মারা গেছে অন্তত ৪২ হাজার বাসিন্দা। এমন দাবি করেছে শহরের বাসিন্দারাই। তাদের মতে, মৃতের সংখ্যা নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে সরকার। কিন্তু চীন সরকার এমন দাবি নাকচ করে দিয়েছে। তারা বলছে, পুরো হুবেই প্রদেশেই মারা গেছে তিন হাজার তিনশ জন। এখবর দিয়েছে ডেইলি মেইল।

হুবেই প্রদেশের একটি শহর উহান। আর এই শহর থেকেই করোনাভাইরাসের উৎপত্তি। যা পরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে।
ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়, যে ভয়াবহ রূপ নিয়ে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে চীনের উহানে তাতে প্রতিদিনই মৃত্যুর খবর আসতে থাকে। বলা হয়, হাসপাতালে জায়গা নেই। মৃতদেহ সৎকারের লোক নেই এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে সেখানে। এ কথারই যেন প্রতিধ্বনি শোনা গেল উহানের স্থানীয়দের কণ্ঠে। তারা বলছে, প্রতিদিন শোকবিধ্বস্ত পরিবারের কাছে, প্রতি ২৪ ঘণ্টায় ৩৫০০ জনের ছাইভষ্ম ফেরত দেয়া হয়েছে। এই হারে যদি ছাইভষ্ম ফেরত দেয়া হয় তাহলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১২ দিনের কঠিন সময়ে কমপক্ষে ৪২,০০০ জনের ছাইভষ্ম ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

স্থানীয় মিডিয়ায় খবর প্রকাশিত হয়েছে যে, মাত্র দু’দিনে পাঁচ হাজার ব্যক্তির ছাইভষ্মের দুটি শিপমেন্ট গ্রহণ করেছে হ্যাংকু। উহান শহরে দু’মাসের লকডাউন শিথিল করার পর এ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। উহানের ঝাং নামে এক অধিবাসী বলেছে, এটা সঠিক বলা যাবে না। কারণ, সারাক্ষণই অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পাদনের জন্য চিতা জ্বলেছে। তাহলে কি করে সরকারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী অতো কম সংখ্যক লোক মারা গেছে?

বরং কত লোক মারা গেছে তা গণনার বাইরে। কারণ কোন বাসিন্দাকেই বাসা থেকে বের হতে দেয়া দেয়নি এবং বাইরে কি হচ্ছে কোন বাসিন্দারই তা দেখার কোন উপায় ছিলো না। তাছাড়া প্রতিটি বাড়িতেই তিন চারজন এমনকি পরিবারের সবাই মারা গেছে এমন ঘটনাও ঘটেছে।

Facebook Comments