ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ০৯ আগস্ট ২০২০

সেবা না বাড়লেও দ্বিগুণ হচ্ছে ওয়াসার পানির দাম

ওয়াসার পানির দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব অযৌক্তিক

নিজস্ব প্রতিবেদক: আবাসিক প্রতি ১ হাজার লিটার পানির দাম বাড়ছে ৮ টাকা ৪৩ পয়সা এবং বাণিজ্যিক ও শিল্পে বাড়ছে ২৭ টাকা ৯৬ পয়সা। আবাসিক সংযোগে বর্তমানে প্রতি ১ হাজার লিটার পানির মূল্য ১১ টাকা ৫৭ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ২০ টাকা করা হচ্ছে। আর বাণিজ্যিক ও শিল্প সংযোগে বর্তমান প্রতি ১ হাজার লিটার পানির মূল্য ৩৭ টাকা ৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৬৫ টাকা করা হচ্ছে।

তবে দাম বাড়ানোর উদ্যোগে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন গ্রাহকরা। তারা বলছেন, এখনও অনেক এলাকায় পানির সংকট ও পানিতে দুর্গন্ধ রয়েছে। এসব সমাধান না করে ওয়াসা দাম বাড়াতে পারে না।

জানা যায়, বর্তমানে ওয়াসার বাৎসরিক পানির গড় বিল প্রায় ১ হাজার ৫’শ কোটি টাকা। দাম বাড়ানোর পর এটি হবে প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা। ঢাকা ওয়াসার পানির বিলের সমান পয়ঃনিষ্কাশন বিল। এ কারণে পানির দাম দ্বিগুণ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পয়ঃনিষ্কাশন বিলও দ্বিগুণ হবে।

কাগজে-কলমে পুরান ঢাকা, ধানমন্ডি -মোহাম্মদপুরসহ আশপাশের এলাকা, বাসাবো ও গেন্ডারিয়াসহ আশপাশের এলাকা, গুলশান-বনানী-বারিধারা, মতিঝিল, মালিবাগ, সেগুনবাগিচা, মগবাজার এলাকা, দনিয়া-শ্যামপুরসহ আশপাশের ৮৮২ কিলোমিটার পয়ঃনিষ্কাশন লাইন এবং এর সঙ্গে সংযোগ রয়েছে ৬১ হাজার ৩৪৯ জন গ্রাহকের লাইন।

কিন্তু, বাস্তবে অধিকাংশ এলাকায় ঢাকা ওয়াসার পয়ঃসংযোগ লাইনের অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। কেননা, দীর্ঘ সংস্কার না করায় এসব সংযোগ অকেজো হয়ে গেছে। এরপরও বর্তমান মূল্য অনুযায়ী ওয়াসা এসব গ্রাহকের কাছ থেকে প্রায় ৩’শ কোটি টাকা আদায় করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। পানির সমান পয়ঃবর্জ্যে দাম বাড়ায় সেটা দাঁড়াবে প্রায় ৬’শ কোটি টাকা।

এ প্রসঙ্গে পানি বিশেষজ্ঞ ইনামুল হক বলেন, ওয়াসা রাজধানীবাসীর জন্য অত্যাচারী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। তারা নোংরা ও দূষিত পানি সরবরাহ এবং জোরপূর্বক পানির দাম বৃদ্ধি করছে। অন্যদিকে শহরের পয়ঃনিষ্কাশন সিস্টেম অকেজো হয়ে পড়লেও পানির সমান দাম আদায় করছে। যা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

জানা যায়, ঢাকা ওয়াসার পানির সংযোগ রয়েছে ৩ লাখ ৯০ হাজার ৬৫১টি। এই সংযোগ থেকে ১ কোটির বেশি মানুষ পানি ব্যবহার করে। ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান জানান, ২০১৯ সালে আবাসিকে প্রতি ১ হাজার লিটার পানির বিল ছিলো ৫ টাকা ৭৫ পয়সা। এরপর কয়েক দফায় দাম বেড়ে আবাসিকে হয়েছে ১১টা ৫৭ পয়সা এবং বাণিজ্যিক ও শিল্পে হয়েছে ৩৭ টাকা ৪ পয়সা। ওয়াসার তথ্যমতে, ঢাকায় এখন দৈনিক পানির উৎপাদন ২৪৫ কোটি লিটার, যেখানে চাহিদা ২৩০ থেকে ২৩৫ কোটি লিটার। কাগজে-কলমে চাহিদার তুলনায় উৎপাদন বেশি দেখানো হলেও বছরজুড়েই রাজধানীতে পানি সংকট থাকে। এ কারণে ওয়াসার প্রকৃত উৎপাদন নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে নগরবাসীর।

এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, ঢাকা ওয়াসা নিজস্ব আয় দিয়ে সংস্থার পরিচালন ব্যয় ও উন্নয়ন প্রকল্পের ঋণ পরিশোধে হিমশিম খাচ্ছে। সে কারণে পানির দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে। সবদিক বিবেচনা করে আমরা ঢাকা ওয়াসার পানির দাম বৃদ্ধি করবো।

Facebook Comments