ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ৩১ মে ২০২০

মসজিদ স্থাপনকে ‘অসৎ চিন্তা’ বলে মন্তব্য করায় নৌ-সচিবকে লিগ্যাল নোটিশ

ইসলাম নিয়ে অবমাননাকর বই প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক:  মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর পবিত্র মসজিদ নিয়ে মানহানীমূলক বক্তব্য দিয়ে মুসলমানদের দ্বীনী অনুভূতিতে আঘাতের দায়ে নৌ-সচিব মো: আব্দুস সামাদকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। “বিশ্ববার্তা” নামক নিউজ পোর্টালের সম্পাদক মুহাম্মদ আরিফুর রহমানের পক্ষে আজ রোববার বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট শেখ ওমর শরীফ রেজিস্টার্ড ডাকযোগে লিগ্যাল নোটিশটি পাঠান।

লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়, সময় টিভির এক প্রতিবেদনে দেখানো হয়- গত মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর), বিআইডব্লিউটিএ ভবনে নদী তীরে থাকা মসজিদ ও অন্যন্য স্থাপনা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা সভায় নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ বলেন, “অসৎ চিন্তা থেকে এই স্থাপনাগুলো (মসজিদ)  করা হয়েছে। এটা আল্লাহর বন্দেগির জন্য না। এখানে বাড়িঘর রক্ষার জন্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে ব্যবহার করা হয়েছে।” নৌ-সচিব তার এমন মন্বব্যের মাধ্যমে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে চরমভাবে আঘাত দিয়েছেন।

নোটিশে বলা হয়, নদী তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সাথে বৈধভাবে ওয়াকফকৃত জমিতে নির্মিত মসজিদের কোনো সম্পর্ক নেই। পবিত্র হাদীস শরীফে হাবীবুল্লাহ হুজুর পাক সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ মুবারক করেছেন, “পবিত্র মসজিদ হচ্ছে মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত ঘর।”

নৌ-সচিব মো: আব্দুস সামাদ উদ্দেশ্যমূলকভাবে নদী তীরের পবিত্র মসজিদের প্রসঙ্গটি জড়িয়ে বলেছেন “অসৎ চিন্তা থেকে এই স্থাপনাগুলো (মসজিদ)  করা হয়েছে। এটা আল্লাহর বন্দেগির জন্য না ”। অথচ বাংলাদেশে ওয়াকফকৃত সম্পত্তির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট আইন আছে এবং পবিত্র মসজিদসমূহ বাংলাদেশে প্রচলিত আইনের আওতায়ই নির্মিত হয়। পবিত্র মসজিদ স্থাপনের আইনসম্মত বিষয়ের সাথে অবৈধভাবে জমি দখলকে সম্পর্কিত করে কোটি কোটি মুসলমানের দ্বীনী অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছেন।

নোটিশদাতা বলেন, উদ্দেশ্যমূলকভাবে কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করাটা বাংলাদশে প্রচলিত দণ্ডবিধির ২৯৫(ক) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

নোটিশে বলা হয়, নোটিশ পাওয়ার ৭ কার্যদিবসের মধ্যে নৌ-সচিব মো: আব্দুস সামাদকে মিডিয়ার সামনে সুস্পষ্ট বিবৃতি দিয়ে পবিত্র মসজিদ বিষয়ক মন্তব্যটি প্রত্যাহার করতে হবে এবং পবিত্র মসজিদকে নিয়ে মানহানীমূলক বক্তব্য দিয়ে মুসলমানদের দ্বীনী অনুভূতিতে আঘাত দেয়ায় তাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে এবং ওয়াক্বফ প্রোপার্টি হিসেবে মহান আল্লাহ পাক উনার ঘর পবিত্র মসজিদ ভাঙ্গা, স্থানান্তর কিংবা অপসারণের চিন্তা থেকে নিজেকে বিরত রাখবেন—এমন প্রতিশ্রুতি দিতেও নৌ-সচিব মো: আব্দুস সামাদকে আহবান জানানো হয়েছে।

অন্যথায় নোটিশদাতা আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে নোটিশে বলা হয়েছে।

Facebook Comments