ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ২৯ মার্চ ২০২০

রাজাকারের তালিকা করতে একটি পয়সাও খরচ হয়নি : মোজাম্মেল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক : সদ্য স্থগিত হওয়া রাজাকারদের ‘বিতর্কিত’ তালিকাটি করতে ৬০ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। তবে এ তালিকা তৈরিতে ৬০ কোটি টাকা ব্যয় সম্পর্কিত যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে সেটি অসত্য বলে উল্লেখ করেছে সরকারের দুই মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় পৃথক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ সংবাদকে অসত্য বলে উল্লেখ করে।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রাজাকারের তালিকা করতে একটি পয়সাও খরচ হয়নি। তবে এমন সংবাদ প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা না করলে ওইসব গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের বরাত দিয়ে কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও পত্রিকায় স্থগিত হওয়া রাজাকারের তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গতকাল ১৮ ডিসেম্বর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নিজ দফতরে সংবাদ সম্মেলন হয়। এ সংবাদ সম্মেলনে ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার প্রায় ১০০ জন সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এটি সরকারিভাবে সংরক্ষিত আছে। ব্রিফিংকালে রাজাকারদের তালিকা তৈরির ব্যয়ের বিষয়ে মন্ত্রী কোনো কিছুই বলেননি। কোনো কোনো গণমাধ্যম উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এ ধরনের সংবাদ প্রচার করছে, যা অনভিপ্রেত। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অবগত নয়।

বিজ্ঞপ্তিতে এ ধরনের অসত্য সংবাদ প্রকাশ বা প্রচার থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

অপরদিকে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ‘রাজাকারের তালিকা করতে ৬০ কোটি টাকা খরচ’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। মন্ত্রী জানিয়েছেন, এ তালিকা প্রণয়নের জন্য কোনো অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়নি বা চাওয়া হয়নি। কাজেই একটি পয়সাও খরচের প্রশ্ন আসে না। এটি একটি অসত্য তথ্য।

এ ধরনের অসত্য সংবাদ প্রকাশ বা প্রচার থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী।

একই সঙ্গে এ সংবাদ প্রকাশ ও প্রচারকারী কর্তৃপক্ষ সংবাদটি প্রত্যাহার করে আগামী ২৫ ডিসেম্বরের মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা না করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী।

Facebook Comments