ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ৩১ মে ২০২০

বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি ছাড়া মামলা শেষ হবে না -আইনমন্ত্রী

বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি ছাড়া মামলা শেষ হবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক: মামলা দায়েরের যে হিড়িক তাতে কোনো দিনই সব মামলা নিষ্পত্তি করা সম্ভব হবে না। এজন্য বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির দিকে জোর দিতে জেলা জজদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে ‘সরকারি আইনি সেবা ও সুশাসন শক্তিশালীকরণ’ শীর্ষক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী আরও বলেন, আজকে মামলা দায়ের করার যে হিরিক, আমি বলবো এটাকে যদি একটা ট্রেন্ড হিসেবে দেখি, তাহলে কিন্তু আমরা নিশ্চিত হতে পারি। এই মামলা শেষ করা যাবে না। পৃথিবীর কোথাও শেষ করা যায়নি। এটাই বাস্তবতা। তিনি বলেন, যেভাবে মামলা দায়ের হয় সেইভাবে নিষ্পত্তি করা না গেলে মামলা শেষ হবে না যত দিন পৃথিবী আছে।

মন্ত্রী বলেন, আমি যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে দেখেছি, সেখানে ৯০ শতাংশ মামলা কোর্টের বাইরে নিষ্পত্তি হয়। আর ১০ শতাংশ মামলা কোর্টে নিষ্পত্তি হয়। আমাদেরও বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির ওপর গুরুত্ব দিতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, বিদ্যমান মামলাজট হ্রাস করতে লিগ্যাল এইড অফিসগুলো যাতে কার্যাকর ভূমিকা রাখতে পারে, সে লক্ষ্যে সরকার প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়নের পাশাপাশি দেওয়ানি কার্যবিধি আইনের ৮৯ (এ) ধারায় সংশোধনী এনেছে। যাতে দরিদ্র ও দুস্থ জনগণকে আইনি সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি পক্ষগণের মধ্যে থাকা বিরোধগুলো বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির সুযোগ তৈরি হয়েছে। এজন্য সরকার লিগ্যাল এইডের অফিসারদের এডিআর বিষয়ক বিভিন্ন প্রশিক্ষন প্রদান করে তাদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে কাজ করছে। আমার বিশ্বাস অসহায়, দরিদ্রদের আইনি সহায়তা দিতে আপনারা সহযোগীতা করবেন। ২০০৯ থেকে এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৭৮ হাজার ২৭৪ জনকে সরকারি আইনগত সহযোগিতা প্রদান করা হয়েছে। আর ক্ষতিপূরনের অর্থ আদায় করা হয়েছে ২৮ কোটি ৭৯ লাখ ৪২ হাজার ৬১৫ টাকা।

তিনি বলেন, যে পরিমাণ বিরোধ মামলা দায়েরের পূর্বেই প্রি-কেইস মেডিয়েশনের মাধ্যমে নিষ্পত্তি হচ্ছে, সে পরিমাণ বিরোধ মামলা দায়েরের পর অর্থাৎ পোষ্ট-কেইস মেডিয়েশনের মাধ্যমে নিষ্পত্তি হচ্ছে না। যদিও আমাদের আদালতগুলোতে লাখ লাখ দেওয়ানী মামলা বিচারের অপেক্ষায় রয়েছে। যেহেতু লিগ্যাল এইড অফিসারগণকে বিচারাধীন দেওয়ানী মামলা মেডিয়েশনের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে তাই দেওয়ানী আদালতগুলো যাতে নিয়মিতভাবে বিচারাধীন মামলাসমূহ আপোষ মীমাংসার জন্য লিগ্যাল এইড অফিসারদের নিকট প্রেরণ করে সে বিষয়ে জেলা জজদের কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

Facebook Comments