ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ২৯ মার্চ ২০২০

রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়াতেই প্রণোদনা -পরিকল্পনামন্ত্রী

রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়াতেই প্রণোদনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, বৈধ পথে প্রবাসীরা যত খুশি রেমিট্যান্স পাঠাতে পারেন। বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠানোর জন্য প্রবাসীদের উৎসাহ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই শতাংশ প্রণোদনা ঘোষণা দিয়েছেন। বেশি বেশি রেমিট্যান্স পাঠান আর সরকারের দেয়া প্রণোদনার সুযোগ গ্রহণ করুন।

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফের বার্ষিক সম্মেলন শেষে দেশে ফেরার পথে বৃহস্পতিবার লন্ডনে যাত্রা বিরতি দেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় তিনি বাংলাদেশ হাই কমিশন আয়োজিত এক আলোচনা সভায় যোগ দেন। সেই আলোচনা অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, যুক্তরাজ্যে বসবাসকারী বাংলাদেশীরা রেমিট্যান্স পাঠিয়ে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। ’

অনুষ্ঠানে ২০টিরও বেশি রেমিট্যান্স প্রেরণকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে মত বিনিময় করেন বলে জানান অর্থমন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা গাজী তৌহিদুল ইসলাম।

অর্থমন্ত্রী বলেন, রেমিট্যান্সের পরিমাণ প্রতি ট্রানজেকশনে ১৫০০ ডলারের বেশি না হলে যুক্তরাজ্যে বা বাংলাদেশে কেউ কোনো প্রশ্ন তুলবে না। বরং রেমিট্যান্স প্রেরণকারীকে প্রেরিত রেমিট্যান্সের উপর দুই শতাংশ হারে প্রণোদনা দেয়া হবে। এ জন্য ইতোমধ্যে সরকার তিন হাজার ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। তাই প্রবাসী বাংলাদেশীদের প্রতি আহ্বান, আপনারা বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠান। বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রবাহ আরো বাড়ানোই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ২ শতাংশ প্রণোদনার মূল লক্ষ্য।’

তিনি বলেন, চলতি বছরের জুলাই থেকে রেমিট্যান্সের ওপর এ প্রণোদনা কার্যকর হয়েছে। যারা ওই সময় থেকে বাংলাদেশে বৈধ পথে টাকা পাঠিয়েছেন, তারা রেমিট্যান্স প্রেরণকারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের প্রাপ্য প্রণোদনা গ্রহণের ব্যবস্থা নিতে পারেন। প্রবাসীদের কল্যাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত দুই শতাংশ প্রণোদনা একটি নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত। বিশ্বের আর কোনো দেশের প্রবাসীরা এ সুবিধা পাচ্ছেন না।’

রেমিট্যান্স পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রবাসীদের সুযোগ-সুবিধাগুলি সার্বক্ষণিক নজরদারীর জন্য যুক্তরাজ্যে হাইকমিশনারের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হবে বলে জানান তিনি।

Facebook Comments