ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ২০ অক্টোবর ২০১৯

টাকার অভাবে বন্ধ হচ্ছে ভারতের টেলিফোন সংস্থা

বন্ধ হচ্ছে ভারতের টেলিফোন সংস্থা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারত সঞ্চার নিগম লিমিটেড এবং মহানগর টেলিফোন নিগম বন্ধ করে দিতে চাইছে ভারত সরকার৷ গত কয়েক বছর ধরে ধুঁকছে রাষ্ট্রের সংস্থা দু’টি৷  সময় মতো বেতন পাচ্ছেন না এই দুই সংস্থার মোট এক লক্ষ ৯৮ হাজার কর্মী৷

সরকারি টেলি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা দু’টির লাইনম্যান থেকে উচ্চপদস্থ আধিকারিক, ‌এমনকি ভেন্ডররাও আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছে। ভয় চাকরি হারানোর, সংস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ার।  জনগণের দীর্ঘদিনের ভরসার সংস্থাটির পুনর্গঠনে কোনও আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করেনি নরেন্দ্র মোদী। ফোর-‌জি স্পেকট্রাম থেকে দূরে সরিয়ে রাখা হয়েছে।  এমনকী, সংস্থার হাতে সরকারেরই দেওয়া ‘‌লেটার অফ কমফোর্ট’‌ থাকা সত্ত্বেও ঋণ দিচ্ছে না কোনও ব্যাংক সবমিলিয়ে বঞ্চনা ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলছে সংস্থার কর্মীরা৷

এদিকে, এই দুই সংস্থাকে আর্থিক সাহায্য দিতেও রাজি নয় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রনালয়। বরং ভারত সঞ্চার নিগম লিমিটেড (বিএসএনএল) এবং মহানগর টেলিফোন নিগম (এমটিএনএল) বন্ধ প্রস্তাব দিয়েছে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ। বেসরকারি টেলিকম সংস্থার রমরমা এবং সরকারের প্রবল উদাসিনতার জেরে ক্রমশ বাজার হারিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা। আয় এবং ব্যয়ের ফারাক বেড়েছে ক্রমশ। সংস্থার কর্তারা বলছেন, আর্থিক সাহায্য এখনই প্রয়োজন তা না পেলে এমনিতেই মুখ থুবড়ে পড়বে ভারের একমাত্র সরকারি টেলি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা।  সরকারের টেলি যোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকে অর্থমন্ত্রনালয়কে সুপারিশ করা হয়েছিল, বিএসএনএলের পুনরুদ্ধারে এখনই অন্তত ৭৪ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হোক। কিন্তু সেই প্রস্তাব  ফিরিয়ে দিয়েছে মন্ত্রনালয়।

Facebook Comments