ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ১৫ অক্টোবর ২০১৯

ভয়াবহ রূপ নিয়েছে সাইবার ক্রাইম

ভয়াবহ রূপ নিয়েছে সাইবার ক্রাইম

নিজস্ব প্রতিবেদক: ক্রমেই অনিরাপদ হয়ে পড়ছে সাইবার জগৎ। ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে অপপ্রচার চালানো এবং কুৎসা রটানোর মাধ্যমে অন্যের সম্মানহানি ঘটানো যেন এখানে অতি সাধারণ ব্যাপার। ছোটখাটো বিষয়ে সরকারের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচারের পাশাপাশি চলছে সন্ত্রাসবাদের উসকানিও। এসব ঘটনায় সরকারের বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে নারী ও শিশুরা।

সংঘবদ্ধ একটি চক্র, রাষ্ট্র ও সমাজের নানা স্তরের ব্যক্তিদের হেয় করার চেষ্টা করে চলছে অনবরতভাবে। এ ছাড়া কারও নামে সংঘবদ্ধভাবে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে আইনের চোখে অপরাধী বানানোরও অপচেষ্টা করা হয়। তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর এসব অপরাধ এখন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম পর্যবেক্ষণ করে এমন তথ্যই মিলেছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সরকারের শক্ত মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা না থাকা ও আইনের যথাযথ প্রয়োগ না থাকায় সাইবার অপরাধের ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলছে। ঘটনাগুলো এখন শুধু ভার্চুয়াল জগতেই নেই, জাতীয় নিরাপত্তায়ও হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত কয়েক দিনে ফেসবুকে অপপ্রচার ও গুজব যেভাবে বেড়েছে, তাতে সাময়িক সময়ের জন্য এ সাইটটিকে বন্ধ করা যেতে পারে বলেও মত তাদের।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, জনপ্রিয় ব্যক্তির ভুয়া পরিচয়ে ফেক ফেসবুক পেজ খোলা হয়। মূলত এসব পেজ থেকে যারা গুজব ছড়ায়, তাদের ৮০-৯০ শতাংশের টার্গেট সরকার, প্রশাসন ও মুক্তিযুদ্ধ। অনেকে সরকারের পরিকল্পনাকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা চালিয়ে থাকে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাইট ও অ্যাপসগুলোর মধ্যে ফেসবুকের মাধ্যমেই সাইবার অপরাধের ঘটনাগুলো বেশি ঘটছে। এ ছাড়া কিছু অখ্যাত অনলাইন পোর্টালও নানা ধরনের অপপ্রচারে লিপ্ত বলে অভিযোগ রয়েছে। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, গুজব ছড়ানোর ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জামাত-শিবিরের হাত রয়েছে। নিজের পরিচয় লুকাতে অনেক কুৎসা রটনাকারী ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) ব্যবহার করেন। ফলে তাদের শনাক্ত করা জটিল হয়ে পড়ে।

Facebook Comments