ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার), ২৩ অক্টোবর ২০১৯

চীন বাংলাদেশের পক্ষে রয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীন বাংলাদেশের পক্ষে রয়েছে

নিউজ ডেস্ক : রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন বাংলাদেশের পক্ষে রয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের মানিক মিয়া মিলনায়তনে একটি সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা জানান।

‘মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকদের স্বদেশে প্রত্যাবর্তন’ বিষয়ক এ জাতীয় সংলাপের আয়োজন করে বার্তা ও টেলিভিশন প্যাকেজ অনুষ্ঠান প্রযোজনা সংস্থা হোম মিডিয়া এবং ল্যান্ড মার্ক পাবলিকেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন হাউস লিমিটেড (এলটিভি বাংলা)।

ড. আবুল কালাম আব্দুল মোমেন বলেন, মিয়ানমার যাদের উপর নির্ভরশীল তারা বাংলাদেশকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চীন সফরকালে সে দেশের প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কথা বলেছে। তারা সবাই এক বাক্যে স্বীকার করেছেন রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তন অবশ্যই প্রয়োজন। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে চীন অবশ্যই বাংলাদেশকে সহযোগিতা করবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন যদি বিলম্বিত হয় এবং অনিশ্চয়তা দেখা দেয় তাহলে শুধু বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের ক্ষতি হবে না, যারা এ অঞ্চলে বিনিয়োগ করেছেন তারাও যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী অত্যন্ত ভীতু প্রকৃতির, তারা তাদের সরকারকে বিশ্বাস করে না। আমরা মিয়ানমারকে কিছু শর্ত দিয়ে বলেছি আপনারা রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে নিয়ে গিয়ে দেখান, তাদের নাগরিকত্ব দেন এবং তাদের স্বাধীনভাবে থাকা ও চলাফেরা করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার বিষয় উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে সারা বিশ্বে মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। সারা বিশ্ব এখন বাংলাদেশের প্রশংসা করে। যা কোটি কোটি টাকা খরচ করেও অর্জন করা সম্ভব নয়। তাই বাংলাদেশের সবাইকে শেখ হাসিনার প্রতি যথেষ্ট কৃতজ্ঞ থাকা দরকার।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে অবশ্যই ফিরে যাবে এবং গেলে সবাই একসঙ্গেই ফিরবে। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার জন্য যা যা করার দরকার আমরা তাই করছি এবং আমরা অবশ্যই সফল হবো।

Facebook Comments