ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পরমাণু অস্ত্র না থাকা অগ্রহণযোগ্য : এরদোগান

পরমাণু অস্ত্র না থাকা অগ্রহণযোগ্য

নিউজ ডেস্ক : তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেছেন, আংকারাকে নিজস্ব পরমাণু অস্ত্র অর্জনে বারণ করছে পারমাণবিক শক্তিধর দেশগুলো, যেটা অগ্রহণযোগ্য। বুধবার সিভাস শহরে ক্ষমতাসীন একে পার্টির এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

ন্যাটো মিত্র যুক্তরাষ্ট্রের হুমকি-ধমকি অবজ্ঞা করে রাশিয়ার সঙ্গে যখন তুরস্ক প্রতিরক্ষা সম্পর্ক বাড়াচ্ছে, তখন তিনি এমন মন্তব্য করলেন। তবে তুরস্ক পরমাণু অস্ত্র বানাতে চায় কি না, তা পরিষ্কার করেননি তিনি। এরদোগান বলেন, বেশ কয়েকটি দেশের পারমাণবিক ওয়ারহেডসহ ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে। কিন্তু আমাদের সেটা নেই। আমি এটা মানতে পারছি না। তার মতে, বিশ্বে এমন কোনো উন্নত দেশ নেই, যারা এই অস্ত্রের মালিক না।

১৯৮০ সালে পারমাণবিক অস্ত্রবিস্তার রোধ চুক্তিতে সই করেছে তুরস্ক। অবশ্য ১৯৯৬ সালে বিস্তৃত পারমাণবিক পরীক্ষা নিষিদ্ধ চুক্তিতে সই করে দেশটি। এতে যেকোনো উদ্দেশ্যে পারমাণবিক বিস্ফোরণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ইসরাইলের মতো একই ধরনের সুরক্ষা পাওয়ার দাবি করছেন বলে আভাস দিয়েছেন এরদোগান।

এই তুর্কি নেতা বলেন, আমাদের কাছেই ইসরাইল, প্রায় প্রতিবেশী। তারা এই অস্ত্রের মালিক হয়ে অন্য দেশকে আতঙ্কিত করে রেখেছে। কেউ তাদের স্পর্শ করতে পারে না। বিদেশী বিশেষজ্ঞরা বলেন, ইসরাইল বড় ধরনের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডারের মালিক। পারমাণবিক ইস্যুতে অবৈধ রাষ্ট্রটি এক ধরনের অস্পষ্টতা বজায় রেখে চলছে। এই ধরনের সক্ষমতার কথা স্বীকার-অস্বীকার কোনোটাই করছে না দখলদার ইসরাইল।

Facebook Comments