ইয়াওমুল জুমুআ (শুক্রবার), ০৩ এপ্রিল ২০২০

চীন-রাশিয়ার সঙ্গে নতুন পরমাণু অস্ত্র চুক্তি করতে চায় ট্রাম্প

চীন-রাশিয়ার সঙ্গে নতুন পরমাণু অস্ত্র চুক্তি করতে চায় ট্রাম্প

নিউজ ডেস্ক : মধ্যপাল্লার পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তি- আই.এন.এফ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর রাশিয়া এবং চীনের সঙ্গে নতুন চুক্তি করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে এই চুক্তির অনুপস্থিতিতে বিশ্বে আবারো পরমাণু অস্ত্রের অসুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হবে বলে সতর্ক করেছে বেইজিং। আর  এর ফলে পরমাণু যুদ্ধের ঝুঁকি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা করেছে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

অন্যদিকে অস্ত্র প্রতিযোগিতার আশঙ্কা উড়িয়ে দিলেও রাশিয়ার হুমকি মোকাবিলার প্রস্তুতির কথা ও জানিয়েছে ন্যাটো।

যুক্তরাষ্ট্র এবং তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধ যখন চূড়ান্ত পর্যায়ে, ঠিক তখন ১৯৮৭ সালে মধ্যপাল্লার পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তি বা আইএনএফ স্বাক্ষর করেছিল দুই দেশ। তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগান এবং সোভিয়েত নেতা মিখাইল গর্বাচেভের মধ্যে স্বাক্ষর হওয়া ওই চুক্তি অনুযায়ী, ৫০০ থেকে সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিষিদ্ধ করতে সম্মত হয় দুই দেশ। ধ্বংস করা হয় প্রায় তিন হাজার ক্ষেপণাস্ত্র। এতে খানিকটা হলেও দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যকার অস্ত্রের প্রতিযোগিতা হ্রাস পায়।

কিন্তু এর ৩২ বছর পর, রাশিয়া ক্রমাগত শর্ত ভঙ্গ করছে এই অজুহাতে শুক্রবার ঐতিহাসিক ওই চুক্তি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বেরিয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এর তীব্র প্রতিবাদ জানায় রাশিয়া। এরপরই ডোনাল্ড ট্রাম্প সাংবাদিকদের জানিয়েছে, রাশিয়া এবং চীনের সঙ্গে নতুন করে চুক্তি করতে আগ্রহী সে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্র আইএনএফ চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। শুক্রবার সে বলেছে, এর মাধ্যমে পরমাণু অস্ত্রধর দুই রাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনা আরো বাড়বে।

আন্তোনিও গুতেরেস বলে, স্নায়ুযুদ্ধের উত্তেজনা কমাতে আইএনএফ চুক্তি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার প্রতি আমার আহ্বান থাকবে তারা যেন দ্রুত কোনো নতুন সমাধান খুঁজে বের করে।এদিকে সামরিক জোট ন্যাটো আইএনএফ চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে সাফাই গেয়েছে। শুক্রবার ব্রাসেলসে সংবাদ সম্মেলনে ন্যাটোর মহাসচিব স্টোলটেনবার্গ সাংবাদিকদের বলে, আন্তর্জাতিক অস্ত্র আইনের প্রতি সম্মান রেখে রাশিয়ার হুমকি মোকাবিলায় একমত হয়েছে জোটের সদস্যরা।

জেনস স্টোলটেনবার্গ বলে, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রাশিয়া আইএনএফ চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছে। যেগুলো এক মিনিটের মধ্যেই ইউরোপের শহরগুলোতে হামলা করতে সক্ষম। কিন্তু সেখানে যুক্তরাষ্ট্র কিংবা ন্যাটোর কোন নতুন ক্ষেপণাস্ত্র নেই। তাই এই চুক্তিতে থাকার কোন অর্থ আছে বলে আমি মনে করি না। তবে এই সম্ভাব্য হুমকির বিষয়ে সার্বক্ষণিক নজর রাখছি আমরা। তবে ন্যাটো নতুন করে কোন অস্ত্র প্রতিযোগিতা চায় না।

Facebook Comments