ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার), ০৩ জুন ২০২০

মৎস্য আইনের খসড়ায় মন্ত্রিসভার অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক: মৎস্য ও মৎস্যপণ্য আইন- ২০১৯ এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ খসড়ায় অনুমোদন দেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘এ আইনের ৯ ধারায় মৎসপণ্যে ভেজাল করার অপরাধের জন্য ২ বছরের কারাদণ্ড অথবা ৫ লাখ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে বলে বিধান রাখা হয়েছে। আগে এ শাস্তি ছিল ৩ মাসের জেল এবং ৫ হাজার টাকা জরিমানা। এছাড়াও এ আইনের ২১ ধারায় প্রশাসনিক জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। যদি কেউ এই আইনের ব্যত্যয় ঘটায় তাহলে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অথবা পরিদর্শক কোনো ব্যক্তিকে অনধিক ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করতে পারবে প্রশাসনিক জরিমানা হিসেবে। ওই ব্যক্তি একই অপরাধ ফের করলে শাস্তির বিধান দ্বিগুণ হয়ে যাবে। অর্থাৎ ফের অপরাধ করলে জেল ২ বছরের স্থলে ৪ বছর হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আইনের ১০ ধারায় বলা হয়েছে, মৎস ও মৎসপণ্যে ভেজাল বা ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করলে শাস্তির আওতায় আনা হবে। মূলত মাছে ভেজাল যেমন চিংড়িতে জেলি মেশানো ইত্যাদি ঠেকাতে মনিটরিং জোরদার করতে এ আইনটি করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এ আইনে মৎস্য পণ্যের সংজ্ঞা ঠিক করা হয়েছে। ‘মৎস্য’ অর্থ সকল প্রকার কোমল অস্থি ও কঠিন অস্থি বিশিষ্ট মাছ (Cartilaginous and Bony Fishes), স্বাদু ও লবণাক্ত পানির চিংড়ি (Prawn and Shrimp), উভচর জলজ প্রাণী (Amphibians), কচ্ছপ (Tortoise), কাছিম, কুমির (Crocodile), কাঁকড়া জাতীয় প্রাণী (Crustacean), শামুক বা ঝিঁনুক জাতীয় জলজ প্রাণী (Molluscs), একাইনোডার্মস (Sea Cucumber) জাতীয় প্রাণী, ব্যাঙ (Frogs/Toad) এবং উহাদের জীবন্তকোষ ও জীবনচক্রের যে কোনো ধাপ এবং সরকার কর্তৃক, সময় সময়, সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, ঘোষিত অন্য কোনো জলজ প্রাণী হিসেবে গণ্য হবে। সংজ্ঞাটি আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে করা হয়েছে।’

Facebook Comments