ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ১৯ নভেম্বর ২০১৯

চুলের যত্নে অ্যালোভেরার

অনলাইন ডেস্ক :ত্বক থেকে চুল সবকিছুর সমস্যায় অ্যালোভেরার ম্যাজিকেই লুকিয়ে রয়েছে সমাধান। পেলব ত্বক হোক বা মজবুত মোলায়েম চুল- এই ভেষজটিতেই পেতে পারেন জাদুর পরশ। আজকাল নানান প্রসাধন সামগ্রীতেও অ্যালোভেরার উপস্থিতি রয়েছে।

বিশেষ করে চুলকে সুন্দর করে তুলতে অনেক রূপবিশেষজ্ঞই এখন অ্যালোভেরার শরণ নিয়ে থাকেন। অ্যালোভেরার গুণাগুণ জানাতে গিয়ে রূপবিশেষজ্ঞরা বলেন, ‘যেকোনও হেয়ার মাস্কে অ্যালোভেরা যোগ করতে পারলে তা চুলকে আলাদা ঔজ্জ্বল্য এনে দেয়। শুধু তা-ই নয়, অ্যালোভেরার রস ও শাঁস দুই-ই চুলের জন্য উপযুক্ত।’

বাড়িতেই তৈরি করে নিতে পারেন এমন কিছু হেয়ার স্পা যার অন্যতম উপাদান অ্যালোভেরা। দেখে নিন কীভাবে বানাবেন?

মধু, নারকেল তেল ও অ্যালোভেরা: শুষ্ক চুলে আর্দ্রতা ফেরাতে ও চুলের ডিপ কন্ডিশনিং করতে এই প্যাকের জুড়ি নেই। এক চামচ মধু, দু’চামচ নারকেল তেল ও দু’চামচ অ্যালোভেরা নিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। স্নানের আধ ঘণ্টা আগে এই মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে রেখে একটা শাওয়ার ক্যাপে ঢেকে দিন মাথা। আধ ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিন চুল।

দই ও অ্যালোভেরা: চুলের স্বাভাবিক ঔজ্জ্বল্যকে ধরে রাখতে দু’চামচ টক দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে দিন এক চামচ অ্যালোভেরা। এই মিশ্রণ প্রায় ১০ মিনিট ধরে মাথার ত্বকে ম্যাসাজ করে শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিন চুল। কন্ডিশনার দিতে ভুলবেন না যেন!

লেবু ও অ্যালোভেরা: লেবুর রস, অ্যালো ভেরা ও আমলার রস দিয়ে বানানো এই মিশ্রণ চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। চুলকে গোড়া তেকে মজবুত করতেও এটি অত্যন্ত কার্যকর।

অ্যালোভেরা ও ডিম: একটি ডিমের কুসুম ও দু’চামচ অ্যালোভেরা ও তার সঙ্গে এক চামচ অলিভ অয়েল। এই উপাদানগুলো দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। শাওয়ার ক্যাপে ঢেকে রাখুন চুল। আধ ঘণ্টা পর চুল ভাল করে ধুয়ে শ্যাম্পু করে নিন। চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও চুল পড়া আটকাতে এই প্যাক বিশেষ কার্যকর।

Facebook Comments