ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

অস্ত্র বিক্রি করতে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ লাগাচ্ছে ইসরায়েল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:শুরুটা হয়েছিল পুলওয়ামা হামলাকে কেন্দ্র করে। এরপর একে অপরকে হামলার মধ্য দিয়ে ভারত-পাক সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে৷ ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে ক্রমশ উত্তেজনা বাড়ছে। আর এই উত্তেজনা বাড়ার পেছনে বড় ভূমিকা রয়েছে ইসরায়েলের।

যুক্তরাজ্যের দৈনিক ইন্ডিপেনডেন্টে এমনটাই দাবি করছেন খ্যাতনামা ব্রিটিশ সাংবাদিক রবার্ট ফিস্ক। তাঁর মতে, নয়াদিল্লির উপর ইসরায়েলের প্রভাব ক্রমশ বাড়ছে, দেশটির আসল লক্ষ্য উত্তেজনা তৈরি করে ভারতের আরও অস্ত্র বিক্রি। প্রায় কাছাকাছি ভাষ্য মিলেছে ইসরায়েলী পত্রিকায়ও। ইন্ডিপেন্ডেন্ট, জেরুজালেম পোস্ট।

ফিস্ক আরো বলেন, ‘ভারতের হিন্দু জাতীয়তাবাদীদের মধ্যে বিরাজমান মুসলমান বিরোধী চেতনাকে পুঁজি করতে চাইছে ইসরায়েল। নয়াদিল্লির কাছে আরও অস্ত্রশস্ত্র বিক্রির লক্ষ্য নিয়ে এমনটি করতে চাইছে তেলআবিব। ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক আরও গভীর করতে এবং পাক-ভারত সম্পর্ককে আরও উত্তেজনার দিকে ঠেলে দিতেও তৎপর রয়েছে ইসরায়েল।’

পাক-ভারত সাম্প্রতিক সংঘর্ষ জুড়ে ইসরায়েলের প্রভাব স্পষ্ট ছিলো বলে জানান তিনি। ফিস্ক বলছেন, ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ লাগলে সেটির ফলাফল নির্ধারণ করে দিতে পারে ইসরায়েল।

মঙ্গলবার পাক ভূখণ্ডের ওপর চালানো হামলায় ইসরায়েলের তৈরি স্পাইস-২০০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহারের কথাও তুলে ধরেন ফিস্ক। তিনি বলেন, এই সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে ফিলিস্তিন দখলদার ইসরায়েল যে লাভের অংক গুনছে এটি তার পরিষ্কার প্রমাণ।

২০১৭ সালে ইসরায়েলের অস্ত্রের সবচেয়ে বড় ক্রেতা ছিল ভারত সে কথাও উল্লেখ করেছেন ফিস্ক। ইসরায়েলের বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনতে ভারত ব্যয় করেছে ৭০ কোটি ডলার। ফিলিস্তিন এবং সিরিয়ায় এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ব্যবহার করেছে ইসরায়েল । আর এতে এই ব্যবস্থার ধ্বংস ক্ষমতা ভারত সরকারকে প্রদর্শন করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে, ‘ভারত ও পাকিস্তান যুদ্ধে জড়ালে ইসরায়ের অস্ত্র হতে পারে আসল নিয়ামক’—এমন শিরোনামে শুক্রবার সম্পাদকীয় প্রকাশ করেছে ইসরায়েলের জনপ্রিয় পত্রিকা জেরুজালেম পোস্ট।

Facebook Comments