ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার), ০৩ জুন ২০২০

অসুস্থ খালেদাকে হাজির করেনি কারা কর্তৃপক্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অসুস্থ। এজন্য গ্যাটকো দুর্নীতি মামলার শুনানিতে তাকে আদালতে হাজির করেনি কারা কর্তৃপক্ষ।

সোমবার পুরান ঢাকার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকা বিশেষ জজ আদালত-৩ এর বিচারক আবু সৈয়দ দিলজার হোসেনের আদালতে মামলাটির চার্জ শুনানির দিন ধার্য ছিল।

খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় তাকে আদালতে হাজির না করে কাস্টডি পাঠায় কারা কর্তৃপক্ষ। কাস্টডিতে উল্লেখ করা হয়, শারীরিকভাবে খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি।

সোমবার বেলা ১১টা ৩৭ মিনিটে আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, মামলাটি চার্জ শুনানির জন্য ধার্য আছে। মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়া জেলে আছেন। তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি। আইনের বিধান মতে সকল আসামির উপস্থিতিতে চার্জ শুনানি করতে হয়। তবে আসামির উপস্থিতি ছাড়া শুনানি করা যায়। নাইকো দুর্নীতি মামলায় তারা খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে অন্যান্য আসামিদের পক্ষে শুনানি করেছেন। আইনের বিধান মতে যদি তারা করতে চান তাহলে তো সকল আসামির উপস্থিত থাকতে হয়। তবে যদি তারা চার্জ শুনানি করতে চান তাহলে করতে পারেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার বলেন, খালেদা জিয়া জেলে। অসুস্থ থাকায় কারা কর্তৃপক্ষ তাকে আদালতে হাজির করেনি। খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করতে আপনি (বিচারক) নির্দেশ দেন। অসুস্থ থাকায় তাকে কর্তৃপক্ষ হাজির করতে পারেননি। খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা সবাই জানেন। গত তারিখে আপনার আদালতে হাজির হওয়ার সময় তিনি গাড়ি থেকে পড়ে যাচ্ছিলেন। কারা কর্তৃপক্ষও হাসপাতালে যাওয়ার ব্যবস্থা করেছিল। যাহোক, কোনো কারণে যাওয়া হয়নি। দিন দিন তার অসুস্থতা বেড়ে যাচ্ছে। এজন্যই কারা কর্তৃপক্ষ তাকে আজ আদালতে হাজির করতে পারেনি।

তিনি বলেন, মামলার প্রয়োজনীয় কিছু কাগজ পেতে আবেদন করেছিলাম। আমরা সেগুলো এখনো পাইনি।

তখন মোশাররফ হোসেন কাজল আদালতকে জানান, মামলার কাগজপত্র দুদকের সংশ্লিষ্ট সাধারণ নিবন্ধন কার্যালয়ে জমা দেওয়া হয়েছে।

আদালত ওই কাগজপত্র আদালতে জমা দিতে বললে মোশাররফ হোসেন কাজল জানান, আজই তিনি এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবেন।

তিনি বলেন, আমরা প্রয়োজনীয় কাগজ পাইনি। চার্জ শুনানিতে সকল আসামির উপস্থিত থাকতে হয়, এজন্য আমরা শুনানি পেছানোর আবেদন করছি।

এরপর আসামি এ কে রশিদ উদ্দিন আহমেদের আইনজীবী এ এফ এ আবদুল ওয়াদুদ আদালতকে বলেন, খালেদা জিয়া অনুপস্থিত থাকায় দুর্ভাগ্যবশত আমরা শুনানি করতে পারছি না। আপনি (বিচারক) কি আমাদের কথা শুনছেন?

তখন মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার এর বিরোধিতা করেন।

দুদকের প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, খালেদা জিয়াকে হাজির করা হয়নি। অন্যান্য শুনানি করলে উনাদের অসুবিধা কী?

তখন মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার বলেন, মাননীয় আদালত, আপনি খালেদা জিয়াকে হাজির করতে নির্দেশ দেন। অসুস্থ থাকায় কারা কর্তৃপক্ষ তাকে হাজির করতে পারেনি। আমরা সকল আসামির উপস্থিতিতে শুনানি করতে চাই।

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে আগামী ১৭ এপ্রিল পরবর্তী চার্জ শুনানির তারিখ ধার্য করেন।

২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর রাজধানীর তেজগাঁও থানায় খালেদা জিয়াসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন দুদকের উপ-পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী।

২০০৮ সালের ১৩ মে তদন্ত শেষে দুদকের উপ-পরিচালক জহিরুল হুদা খালেদা জিয়াসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বর্তমানে এ মামলায় আসামির সংখ্যা ১৭ জন। ৭ আসামি মারা গেছেন।

Facebook Comments