ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ২৮ মে ২০২০

১৯৩টি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে ইয়াবা ঢুকছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইয়াবা: কমেছে অভিযান, বেড়েছে পাচার

নিউজ ডেস্ক : আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যের বিরুদ্ধেও কোনো অভিযোগ থাকলে পুলিশের মহাপরিদর্শককে (আইজিপি) জানাতে বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
আজ শনিবার সকালে টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ইয়াবা কারবারীদের আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু সদস্যের বিরুদ্ধেও অভিযোগ রয়েছে। এ ধরনের অভিযোগ পেলেই আমাদের জানান, আইজিপিকে জানান। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য হলেও জড়িত থাকলে কঠোরভাবে দমন করা হবে। আমাদের ইসলাম ধর্মে মাদকের বিষয়ে কঠোর নিষেধ আছে। আসুন, আমরা ধর্মকে হৃদয়ে ধারণ করে ইয়াবাকে বর্জন করি।’
ইয়াবা চোরাচালান বন্ধ করতে সীমান্তকে কঠোরভাবে সুরক্ষা করা হবে জানিয়ে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘উখিয়া-টেকনাফসহ ১৯৩টি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে ইয়াবা বাংলাদেশে ঢুকছে। মিয়ানমারকে ইয়াবা চোরাচালান বন্ধ করতে অনেকবার বলেছি। তারা বলে কিন্তু বাস্তবে কিছুই করে না। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি সীমান্তকে আমরা কঠোরভাবে সুরক্ষা করব।’
একইসঙ্গে টেকনাফসহ কক্সবাজারকে ইয়াবামুক্ত করতে সবার সহযোগিতা চান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
এ সময় মাদক কারবারীদের উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা বিকল্প কর্মসংস্থান করতে সরকারের সহায়তা চাইলে তাও করা হবে। তবুও আপনারা এ পথ থেকে ফিরে আসুন।’

Facebook Comments