ইয়াওমুল জুমুআ (শুক্রবার), ১০ জুলাই ২০২০

১০ থেকে ১৬ মার্চ জাটকা ধরা নিষিদ্ধ

নিউজ ডেস্ক:অবৈধ জাল ফেলবো না, জাটকা-ইলিশ ধরবো না’— এই স্লোগানকে সামনে রেখে এ বছর পালিত হবে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ। আগামী ১০ থেকে ১৬ মার্চ পর্যন্ত এই সপ্তাহ পালনের সময় দেশের কোথাও কোনও নদীতে জাটকা ধরা যাবে না। এই সময়ে জাটকা সংরক্ষণ, সরবরাহ ও বিপণন হবে দণ্ডনীয় অপরাধ।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ নিয়ে ‘ইলিশসম্পদ উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় টাস্কফোর্স’র সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়।

ইলিশ রক্ষায় প্রতি বছর সরকারিভাবে ‘জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ’ পালন করা হয়।মূলত ইলিশ অধ্যুষিত ৩৭টি জেলায় জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ পালন করা হবে। মৎস্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সপ্তাহব্যাপী এ কর্মসূচির মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলাগুলোতে সচেতনতামূলক ভিডিওচিত্র প্রদর্শন, টিভি-রেডিওতে প্রচারণা, ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে জাটকা সংরক্ষণ আইনের প্রচারের পাশাপাশি পুলিশি অভিযান চালানো হবে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে পরিচালিত হবে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সভায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু সভাপতিত্ব করেন। এতে মন্ত্রণালয়ের সচিব রইছ-উল-আলম মণ্ডলসহ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও টাস্কফোর্সের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, এবার জাটকা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে ভোলার চরফ্যাশনে। উদ্বোধনের পর মৎস্য প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে নদীতে হবে নৌ-র্যা লি। জাটকা সপ্তাহ উপলক্ষে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন কর্মসূচি আগামী ১০ মার্চ মৎস্য অধিদফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে জানাবেন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী। সপ্তাহের বিস্তারিত কর্মসূচি তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেবেন প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু।

টাস্কফোর্স সভায় মৎস্য প্রতিমন্ত্রী জাটকাসহ অন্যান্য মাছের বংশ ধ্বংসকারী জাল সমূলে উৎপাটনে সবার প্রতি আহ্বান জানান। অবৈধ জাল ব্যবহারকারীদের আটকের পর মুক্তির ব্যাপারে কোনও চাপের কাছেও মাথা নত না করতেও সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন তিনি।

Facebook Comments