ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ২১ নভেম্বর ২০১৯

প্লাস্টিকের চাল নিয়ে ওঠা অভিযোগের ভিত্তি নেই: কৃষিমন্ত্রী

বিদেশ থেকে চাল আমদানি কেন?

নিজস্ব প্রতিবেদক : কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, প্লাস্টিকের চালের বিষয়ে যে অভিযোগ উঠেছে তার কোনো ভিত্তি নেই। আমি ডিসি, ডেপুটি ডিরেক্টরের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা সেখানে গিয়েছেন। সেই চাল এনে রান্না করেছে ও মুড়ি বানিয়েছে। কোনোক্রমে প্লাস্টিকের চাল বাস্তবসম্মত নয়।

বুধবার ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিলারের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তিনি এ কথা বলেন।কৃষিমন্ত্রী বলেন, দেশে কৃষকরা চাল বিক্রি করতে পারছেন না। আমি টাঙ্গাইলে গিয়েছি হাজার হাজার মানুষ বলেছে আমরা শেষ হয়ে গেলাম। সেখানে প্লাষ্টিকের চালের বিষয়টি অবাস্তব। গাইবান্ধা থেকে ঢাকায় পরীক্ষার জন্য চাল পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্রীয়ভাবে সেটি আমরা পরীক্ষা করে দেখব। কোনোক্রমেই প্লাস্টিকের চাল বিষয়টি সম্ভব নয়।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য দিবস ঘোষণা করেছেন ঢাকায় সেন্ট্রাল একটি ল্যাব করা হবে। যেখানে খাদ্যে ভেজাল, ওষুধে ভেজাল নির্ণয় করা যাবে। আধুনিক ল্যাব করতে চাচ্ছেন তিনি। এজন্য প্রশিক্ষিত জনশক্তি লাগবে। আমাদের দেশের ছেলে-মেয়েরা এখন সবাই স্কুলে যাচ্ছে। তারা এখন আর মাঠে কাজ করতে চাইবে না। এদের জন্য কাজের সংস্থান করতে হবে। তারুণ্যের শক্তিকে আমরা দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত করব। তাদের জন্য কর্মসংস্থান নিশ্চিত করব। এ বিষয়গুলো আমরা তুলে ধরেছি মার্কিন রাষ্ট্রদূতের কাছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমরা বলেছি ইউএসএআইডির মাধ্যমে তাদের কাছে আমরা সহযোগিতা চাই। প্রযুক্তিগত ল্যাবরেটরি স্থাপন করাসহ বিভিন্ন সহযোগিতার কথা তারা বলেছে।

পলিটিক্যাল বিষয়ে আলোচনা হয়েছে কি না-জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেকোনো দেশের উন্নয়নের জন্য পলিটিক্যাল স্টাবিলিটি দরকার-সেটা অনেকটা নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। এখন যখন তখন আর হরতাল, অবরোধ হবে না। যা উন্নয়নের জন্য খুবই সহায়ক। মার্কিন রাষ্ট্রদূত আমার সঙ্গে একমত হয়ে বলেছেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। বিনিয়োগকারীরা এখন বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করছে।

Facebook Comments