ইয়াওমুল ইসনাইন (সোমবার), ১৮ নভেম্বর ২০১৯

২০১৮-১৯ সালে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা রফতানি ২১২.৬ মিলিয়ন ডলার

২০১৮-১৯ সালে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা রফতানি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা উৎপাদন মন্ত্রণালয়ের ‘ফার্স্ট ইয়ার পারফরমেন্স রিপোর্ট’ অনুযায়ী ২০১৮ সালের আগস্ট থেকে ২০১৯ সালের আগস্ট পর্যন্ত সময়ে দেশের প্রতিরক্ষা রফতানি হয়েছে ২১২.৬ মিলিয়ন ডলার।

সবচেয়ে বেশি রফতানি করেছে পাকিস্তান অ্যারোনটিক্যাল কমপ্লেক্স (পিএসি) – যার মূল্য ১৮৪.৩৮ মিলিয়ন ডলার। এর পরেই রয়েছে পাকিস্তান অর্ডিন্যান্স ফ্যাক্টরিজ (পিওএফ), যার রফতানির পরিমাণ ৭.১৩ মিলিয়ন ডলার এবং হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ ট্যাক্সিলা (এইচআইটি), যার রফতানির পরিমাণ ১.৩ মিলিয়ন ডলার। সেই সাথে দেশের প্রাইভেট খাতের ফার্মগুলোর রফতানি হয়েছে ১৯.৩৬ মিলিয়ন ডলার।

প্রতিরক্ষা উৎপাদন মন্ত্রণালয়ের ২০১৭-১৮ বছরের বাৎসরিক হিসেব অনুযায়ী, পিওএফের রফতানির পরিমাণ ছিল ৫৮.১৫ মিলিয়ন ডলার। ২০১৬-১৭ সালে, পিওএফের রফতানি ছিল ৬৭.৮ মিলিয়ন ডলার আর ২০১৫-১৬ সালে রফতানির পরিমাণ ছিল ৯৩.৬৮ মিলিয়ন ডলার।

এইচআইটির রফতানির মধ্যে রয়েছে ছয়টি ‘ইন্টারসেপ্টর’ হালকা আর্মার্ড যান, যেটা তারা বাহরাইনের কাছে রফতানি করেছে।

করাচি শিপইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস (কেএসইডাব্লিউ) এবং ন্যাশনাল রেডিও টেলিকমিউনিকেশান কর্পোরেশানের (এনআরটিসি) রফতানির হিসেবটি প্রতিরক্ষা উৎপাদন মন্ত্রণালয়ের রেকর্ডে নেই।

সক্ষমতার দিক থেকে বিবেচনা করলে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা সরবরাহ সেভাবে ভালো হয়নি। ২০১৮ সালে বুলগেরিয়া রফতানি করেছে ৮৪৪.৩ মিলিয়ন ডলারের পণ্য, যেখানে ভারত ২০১৯-২০ সালে রফতানি করেছে ৬২১ মিলিয়ন ডলার।

Facebook Comments