ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ২০ অক্টোবর ২০১৯

পহেলা বৈশাখে কথিত “মঙ্গল শোভাযাত্রা” আয়োজন করায় ২৭টি মাদরাসাকে লিগ্যাল নোটিশ

সিঙ্গাইর মহাসড়কের গাছ কাটা বন্ধ রাখতে হাইকোর্টের নির্দেশ

বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে কথিত “মঙ্গল শোভাযাত্রা” আয়োজন করায় ২৭টি মাদরাসার কর্তৃপক্ষকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন আলহাজ্ব লায়ন মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক সভাপতি, জাতীয় কোরআন শিক্ষা মিশন, বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট মুহম্মদ হাসান শহীদ কামরুজ্জামান-এর মাধ্যমে এই লিগ্যাল নোটিশটি আজ (বৃহস্পতিবার) রেজিস্টার্ড ডাকে পাঠানো হয়েছে।

গত ১৪ এপ্রিল ২০১৮, বাংলা নববর্ষের প্রথম দিনে দেশের কিছু মাদরাসার শিক্ষক ও ছাত্ররা তথাকথিত “মঙ্গল শোভাযাত্রা” আয়োজন করার সংবাদ বিভিন্ন পত্রিকা ও সোশ্যাল মিডিয়াতে এসেছে। মাদরাসাগুলোর এই আয়োজনে ক্ষুব্ধ হয়ে আলহাজ্ব লায়ন মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক সাহেবের পাঠানো লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়েছে যে, মাদরাসার শিক্ষক হিসেবে পবিত্র কোরআন শরীফ ও পবিত্র হাদিস শরীফের ঐশি জ্ঞানের চর্চাকারী বিধায় আপনাদের জানা উচিৎ ছিল বর্ষ উৎযাপন অর্থাৎ নওরোজ উৎযাপন দ্বীন ইসলামের শরিয়তে বিজ্ঞ ফেকাহবিদ (আইন বিদ) গণের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত মোতাবেক সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। কেননা ঐতিহাসিকভাবে প্রামাণ্য সত্য যে, বাংলা সনের প্রতিটি মাসের নামই প্রাচীন হিন্দু বর্ষপঞ্জী থেকে গ্রহণ করা হয়েছে এবং পহেলা বৈশাখ উদযাপনকেন্দ্রিক উৎসবগুলোরও উৎস সুস্পষ্টভাবে বহু দেব-দেবী কেন্দ্রীক চিন্তা আশ্রিত হিন্দু ধর্ম। যার সাথে পবিত্র দ্বীন ইসলামের রয়েছে সুস্পষ্ট বিরোধ। অথচ আপনি নোটিশগ্রহীতা, পবিত্র দ্বীন ইসলামের শিক্ষাকেন্দ্র পবিত্র মাদরাসার মুহতামিম হওয়া সত্ত্বেও, আপনার মাদরাসার শিক্ষক ও ছাত্ররা পবিত্র দ্বীন ইসলামের শিক্ষা ও তাহযিব-তামাদ্দুন বিরোধী কথিত ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’-এর আয়োজন করেন। যা আমার মোয়াক্কেলের দ্বীনি অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

লিগ্যাল নোটিশে আরও বলা হয়, কথিত পহেলা বৈশাখ উদযাপন ও মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন যেহেতু হিন্দুদের ধর্মীয় রীতি, সেহেতু এই বিরোধীয় বিষয়টির সাথে পবিত্র দ্বীন ইসলামের শিক্ষাকেন্দ্রকে সম্পর্কযুক্ত করে আপনি নোটিশগৃহীতা আমার সম্মানিত মোয়াক্কেলসহ আপামর মুসলমানগণের পবিত্র দ্বীনি অনুভূতিতে আঘাত করেছেন। আপনাদের এহেন কর্মকাণ্ড বাংলাদেশে প্রচলিত দণ্ডবিধির ২৯৫(ক) ধারা মোতাবেক শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

ওই নোটিশ পাওয়ার সাত কার্যদিবসের মধ্যে সেই ২৭টি মাদরাসার মুহ্তামিমদেরকে কথিত পহেলা বৈশাখ উদযাপন ও মঙ্গল শোভাযাত্রা পালনের সপক্ষে পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীস শরীফ থেকে সুস্পষ্ট দলীল দেখাতে বলা হয়েছে অথবা তাদের কৃতকর্মের ব্যাপারে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করতে আহবান জানানো হয়েছে। অন্যথায় সেই ২৭টি মাদরাসার মুহতামিমদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানানো হয়েছে লিগ্যাল নোটিশে।

Facebook Comments