ইয়াওমুল জুমুআ (শুক্রবার), ২২ নভেম্বর ২০১৯

জিএমও ফুড ১০০% ক্ষতি কারক,জিএমও ফুডকে” না বলুন”

 

জিএমও ফুড ১০০% ক্ষতি কারক

* জিএম ফসলের অন্য জীব থেকে ঢুকানো জেনেটিক ইনফরমেশন ।

* মানুষের স্টোমাক ও ইনস্টেস্টাইন এর মাধমে হজম হতে পারে না ।

* কখনো কখনো রক্তের মাধ্যমে সাধারণ ডিএনএ সাথে মিশে যেতে পারে ।

* আচরনের পরিবর্তন আনে ।

* ব্রেস্ট ক্যান্সার ।

* প্রোস্টেট ক্যান্সার ।

* কোলন ক্যান্সার ।

* সয়াবিন, টমেটো, আলু, ভূটা, তুলা ও ধান এর জিএম সারা বিশ্বে  প্রচুর পরিমানে উৎপাদন হচ্ছে ।

* সেক্স ক্রোমোজোমে প্রভাব ফেলতে পারে ।

* সেক্স ইনফর্টিলিটি বা বন্ধাত্ব দেখা দিতে পারে ।

* জিএম শস্যে নতুন নিউক্লিওটাইড বা ডিএনএ ঢুকানোর ফলে, ফুড-এলার্জি তৈরী হতে পারে ।

*  জিএম শস্যে  মানব দেহে বিভিন্ন এলার্জি বা টক্সিন রিএকশন তৈরী করতে পারে বা  জিএম এর ভাইরাল ভেক্টর মানব দেহে ভয়ংকর রোগ তৈরী করতে পারে ।

* মানুষের দেহে রোগ-প্রতিরোধী কার্যক্ষমতা তৈরীর ক্ষমতাও কমে যায় ।

* প্রানীর জীন, যদি ফল বা শাকসবজিতে ঢুকানো হয় তবে ঐ জিএম শস্য, ভেজিটেরিয়ান-ডাইট এ বিরূপ প্রভাব ফেলবে ।

*  জিএম ফসল থেকে, ট্রান্সফারড-জীন, অন্যান্য অর্গানিজমে প্রতিস্থাপন হতে পারে ফলে ।

* জেনেটিক-পলিউশান হতে পারে ।

* হৃদরোগ ও ক্যান্সার প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে যাবে ।

* চুলকানি, মুখ ফুলে যাওয়া,,,,,,ধারাবাহিক

(ডা:আলা উদ্দীন)

 

Facebook Comments