ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ২০ অক্টোবর ২০১৯

তথ্যমন্ত্রীকে ওলামালীগের অাইনী নোটিশ

‘বিবস্ত্র নারীর চিএরুপ সমাজের লিঙ্গ বৈষম্য দূর করার প্রেরণা হতে পারে’- এমন বক্তব্যের মাধ্যমে নগ্নতাকে উৎসাহিত করে বাংলাদেশের সংবিধান ও আইন লঙ্ঘন করায় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি ব্যারিস্টার আব্দুল হালিমের মাধ্যমে লিগ্যাগ নোটিশটি পাঠিয়েছেন আওয়ামী ওলামালীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ মাওলানা মুহম্মদ আব্দুল জলিল।
নোটিশে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদে শালীনতা ও নৈতিকতার স্বার্থে এবং আইনের দ্বারা আরোপিত বাধানিষেধ সাপেক্ষে বাকস্বাধীনতা প্রদান করা হয়েছে। নগ্নতাকে উৎসাহিত করে তথ্যমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যের মাধ্যমে সাংবিধানিক বিধিনিষেধ ও দেশের প্রচলিত আইন লঙ্ঘিত হয়েছে।

সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম দ্বীন ইসলাম। সম্মানিত দ্বীন ইসলামে সব ধরনের নগ্নতা, মূর্তি, চিত্র তৈরী সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।
নোটিশে আরো বলা হয়, পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২-এর ২ ধারায় যৌন উত্তেজনা সৃষ্টিকারী ভাষ্কর্য, কল্পমূর্তি ও মূর্তিকে ‘পর্নোগ্রাফি’ হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে। একইভাবে বাংলাদেশ দন্ডবিধির ২৯৪ ধারায় প্রকাশ্যে অশালীন বক্তব্য দিলে তিন মাস কারাদন্ড ও অর্থদন্ড বিধান রয়েছে। অথচ তথ্যমন্ত্রী নগ্ন নারীমূর্তিকে উৎসাহিত করে প্রকাশ্যে অশালীন বক্তব্য প্রদান করেছেন।
রেজিষ্ট্রী ডাকে পাঠানো নোটিশে তথ্যমন্ত্রীকে চার কর্মদিবসের মধ্যে তার বক্তব্য প্রত্যাহার পূর্বক ক্ষমা চাইতে আহবান জানানো হয়েছে। অন্যথায় নোটিশদাতা তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

Facebook Comments