ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার), ০৩ জুন ২০২০

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতকারী বই প্রকাশ নিষিদ্ধ – ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে, এমন বই প্রকাশ করা বা অমর একুশে গ্রন্থমেলায় আনা যাবে না। যদি এ ধরনের কাজ কেউ করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে গ্রন্থমেলার নির্ধারিত জায়গা বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ শেষে তিনি সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘মেলায় লেখক, প্রকাশক থেকে শুরু করে কারো বাড়তি নিরাপত্তার প্রয়োজন হলে তা দেওয়া হবে। এজন্য মেলায় বসানো পুলিশের কন্ট্রোল রুমে যোগাযোগ করতে হবে। তবে গ্রন্থমেলায় এমন কোনো বই প্রকাশ করা বা আনা যাবে না যা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে। সাম্প্রদায়িক আঘাত ও ধর্মীয় উস্কানিমূলক কোনো বই প্রকাশ না করতে প্রকাশকদের নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে। তারপরও যদি এমন কাজ কেউ করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, বইমেলা এলাকায় শ্লীলতাহানিসহ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেজন্য ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা দিয়ে পুরো এলাকা পর্যবেক্ষণ করা হবে। মেলায় আসা সবাইকে আর্চওয়ে দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতে হবে। সবাইকে মেটাল ডিটেক্টর ও ফিজিক্যাল তল্লাশির মধ্য দিয়ে মেলায় প্রবেশ করতে হবে। ব্যাকপ্যাক, ভ্যানিটি ব্যাগ, দাহ্য ও ধারালো বস্তু নিয়ে মেলায় প্রবেশ করা যাবে না। দর্শনার্থীরা দোয়েল চত্ত্বর ও টিএসসি থেকে পায়ে হেঁটে মেলায় প্রবেশ করবে। কারণ, দোয়েল চত্ত্বর ও টিএসসি থেকে সকল গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকবে। দোয়েল চত্ত্বর থেকে টিএসসির রাস্তার মধ্যে যেসব কার্যালয় আছে, শুধু তারাই স্টিকারযুক্ত গাড়ি নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে।

তিনি আরো বলেন, দোয়েল চত্ত্বর, শাহবাগ, নীলক্ষেত ও বকশিবাজার এলাকায় ডিএমপির বহিঃবেষ্টনী এবং পুরো এলাকার ভেতর অন্তঃবেষ্টনী থাকবে। ইতিমধ্যে গোয়েন্দা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সোয়াট স্কোয়াড ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকবে। এছাড়া ডগ স্কোয়াড পুরো এলাকা সুইপিং করবে। ছিনতাইকারী ও পকেটমারদের প্রতিরোধে ডিএমপির মোবাইল টিম কাজ করবে।

কমিশনার বলেন, কারো চোখে যদি সন্দেহজনক কোনো কিছু পড়ে তাহলে কন্ট্রোল রুমে জানান। প্রতিটি স্টলে অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র থাকতে হবে। ওয়াচ টাওয়ার থেকে এবং সিসি ক্যামেরা দিয়ে পুলিশ সার্বক্ষণিক পুরো এলাকা পর্যবেক্ষণ করবে।

Facebook Comments