ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ৩১ মে ২০২০

এবার ঈদে দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা গতবারের চেয়ে বেশি

এবারের ঈদুল ফিতরের আগে-পরে বাংলাদেশের সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা গত বছরের চেয়ে বেড়ে যাওয়ার পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে একটি সংগঠন।

এবারের ঈদযাত্রা আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে স্বস্তিদায়ক ছিল বলে সড়কমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দাবির মধ্যে মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলনে এই পরিসংথ্যান তুলে ধরে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

তাদের হিসাবে, এবার ঈদের আগে-পরে সড়কে ২০৫টি দুর্ঘটনায় ২৭৪ জন প্রাণ হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন ৮৪৮ জন। ২০১৬ সালে একই সময়ে ১২১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৮৬ জন নিহত হয়েছিলেন, আহত হয়েছিল ৭৪৬ জন।

সেই হিসাবে এবার ঈদে দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা গতবারের চেয়ে ৮৮ জন বেশি। আহতের সংখ্যা বেশি ১০২ জন।

এবার ঈদের সময় সড়ক, রেল ও নৌপথে মোট ২৪০টি দুর্ঘটনায় ৩১১ জন মারা গেছেন বলে যাত্রী কল্যাণ সমিতির হিসাব।

গত ১৯ জুন ঈদযাত্রা শুরুর দিন থেকে কর্মস্থলে ফেরার দিন ১ জুলাই পর্যন্ত দুর্ঘটনাগুলো এই পরিসংখ্যানের আওতায় এসেছে।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী জানান, সংগঠনের সড়ক মনিটরিং সেলের এই প্রতিবেদন তৈরি করে।

তিনি বলেন, “গত ৪ বছর ধরে আমরা সড়ক দুর্ঘটনা পর্যবেক্ষণ করে প্রতিবেদন তৈরি করছি। সাম্প্রতিক বছরগুলোয় ঈদকেন্দ্রিক সড়ক দুর্ঘটনা আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে।

“এবারের ঈদযাত্রা কিছুটা স্বস্তিদায়ক ছিল। তবে সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির ঘটনা বেড়েছে।”

এই দুর্ঘটনা ঘটেছিল ধামরাইয়ে, নিহত হয়েছিলেন দুজন এই দুর্ঘটনা ঘটেছিল ধামরাইয়ে, নিহত হয়েছিলেন দুজন
দুর্ঘটনার জন্য অতিরিক্ত গতি, অদক্ষ চালক দিয়ে গাড়ি চালানো, ফিটনেসবিহীন যানবাহন এবং পণ্যবাহী যানে যাত্রী পরিবহনসহ ১০টি কারণ চিহ্নিত করেছে যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

সড়ক দুর্ঘটনার প্রতিবেদন তৈরিতে দেশের ২২টি জাতীয় এবং ৬টি আঞ্চলিক দৈনিক, ১০ অনলাইন সংবাদ মাধ্যমের সহায়তা নেওয়া হয়েছে বলে জানান মোজাম্মেল।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১৯ জুন ঈদযাত্রা শুরুর দিন ১২টি দুর্ঘটনায় মারা যান ২০ জন। ২০ জুন ৬টি দুর্ঘটনায় ৬ জন, ২১ জুন ১২টি দুর্ঘটনায় ১৬ জন, ২২ জুন ১১টি দুর্ঘটনায় ১৪ জন, ২৩ জুন ১৫টি দুর্ঘটনায় ১৮ জন এবং ২৪ জুন ২০টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৪১ জন মারা যান।

২৫ থেকে ২৮ জুন ঈদের ছুটির তিন দিন ৬০টি দুর্ঘটনায় মারা যায় ৬০ জন।

ফিরতি যাত্রায় ২৯ জুন ২৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩৪ জন, ৩০ জুন ২১টি দুর্ঘটনায় ২৩ জন এবং ১ জুলাই ২৫টি দুর্ঘটনায় সারাদেশে ২২ জন মারা যান।

Facebook Comments