ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ২৮ মে ২০২০

কওমির ‘মাস্টার্স সমমান সনদ’ বাতিলের রিট উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করেছে হাইকোর্ট

কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্সের (ইসলামিক স্ট্যাডিজ এবং আরবি) সমমান প্রদান করে জারি করা গেজেটের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করেছে হাইকোর্ট।

এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ সোমবার বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো: আতাউর রহমান খান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

গত ১৩ এপ্রিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ কওমি মাদ্রাসার সর্বোচ্চ সনদকে সাধারণ শিক্ষার স্নাতকোত্তর ডিগ্রির স্বীকৃতি দিয়ে গেজেট জারি করে। এ গেজেটের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের এক অনুসারী মো. ফজলুল হক নামে এক ব্যক্তি হাইকোর্টে রিট করেন। ওই রিট আজ সোমবার উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ হয়ে যায়।

গেজেটে বলা হয় ‘কওমি মাদ্রাসার বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে ও দারুল উলুম দেওবন্দের মূলনীতিগুলোকে ভিত্তি ধরে কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্সের (ইসলামিক স্ট্যাডিজ এবং আরবি) সমমান প্রদান করা হলো। ’

দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মার্স্টাসের সমমান দেয়ার লক্ষ্যে কওমি মাদ্রাসা বোর্ডগুলো কর্তৃক গঠিত মান বাস্তবায়ন কমিটির ওপর ‘আস্থাভাজনপূর্বক’ কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান শাহ আহমদ শফীকে চেয়ারম্যান করে একটি কমিটিও গঠন করে সরকার।

গেজেটে বলা হয়েছে, এ কমিটি সনদ-বিষয়ক যাবতীয় কার্যক্রমের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী বলে বিবেচিত হবে। এ কমিটি দ্বারা নিবন্ধিত মাদ্রাসাগুলো দাওরায়ে হাদিসের সনদ মাস্টার্সের সমান বিবেচিত হবে।

Facebook Comments