ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

সরকারের কাছে ক্ষমা চাইবেন না : ইমরান সরকার

‘মার্কিন জাস্টিস ডিপার্টমেন্টের নথিতে শফিক রেহমানের নাম নেই’ জানিয়ে কোনো অপরাধীর পক্ষ নেননি বলে দাবি করেছেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার।

এ কারণে সরকারের কাছে ক্ষমা চাইবেন না বলেও জানিয়েছেন তিনি। রোববারের শফিক রেহমানকে গ্রেফতারের সমালোচনা করায়  ইমরানের বিরুদ্ধে অপরাধীর পক্ষ নেয়ার অভিযোগ করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা ও তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়।

জয়ের এমন অভিযোগের জবাবে একটি বেসরকারি চ্যানেলকে দেয়া বক্তব্যে নিজের অবস্থানের ব্যাখ্যা দেন ইমরান। তিনি বলেন, ‘মার্কিন জাস্টিস ডিপার্টমেন্টের নথিতে শফিক রেহমানের নাম নেই। এফবিআই কর্মীকে ঘুষ দিয়ে তথ্য নেয়ার চেষ্টাসহ ষড়যন্ত্রের যে চেষ্টা হয়েছিলো সেটির বিচার যুক্তরাষ্ট্রে ২০১৫ সালেই হয়ে গেছে’।

তিনি আরও  বলেন, ‘আমি কোনো অপরাধীর পক্ষে নয় বরং মতপ্রকাশের পক্ষ নিয়েছি। শফিক রেহমান সাংবাদিক হওয়ায় সেহেতু মতপ্রকাশের বিষয়টি আসছে।’

বিরোধী মত দমনের যে সংস্কৃতি শুরু হয়েছে তার সমালোচনা করে কোনো অপরাধ করেননি বলেও দাবি করেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র। এ কারণে সরকারের কাছে ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। শফিক রেহমানের গ্রেফতারের ব্যাপারে জয় বলেন,’যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস আমাকে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রে শফিক রেহমানের সরাসরি সংশ্লিষ্টতা উদ্ঘাটন করেছে। তারা এ বিষয়ে প্রমাণাদি আমাদের সরকারের কাছে দিয়েছে। তাকে এই প্রমাণের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি এর চেয়ে বেশি কিছু প্রকাশ করতে পারছি না, কিন্তু এই প্রমাণ দ্ব্যর্থহীন এবং অখণ্ডনীয়।’

এই গ্রেফতারের ব্যাপারে ইমরানের সমালোচনার ব্যাপারে জয় বলেন, ‘আমি আশাই করেছিলাম বিএনপি এটা নিয়ে মিথ্যা বলার চেষ্টা করবে। যদিও আমি আশ্চর্য হয়েছি ইমরান সরকারের বিষয়ে। সম্ভবত শেষ পর্যন্ত তার আসল চেহারাটা উন্মোচিত হল। এটা দেখে মনে হচ্ছে, সে আমাদের বেশিরভাগ সুশীলের মতই, আরেকটা সুবিধাবাদী এবং মিথ্যাবাদী।’

তিনি বলেন, ‘হয়তো বিএনপি তাকে পয়সা দিয়েছে। কে জানে। যেভাবেই হোক, আমি তার প্রতি সব শ্রদ্ধা হারিয়েছি। তাকে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করে আমাদের সরকারের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।’

Facebook Comments