ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ২৮ মে ২০২০

২০১৫ সালে বিজিবি ঠেকিয়েছে ৭৮৭ কোটি টাকার চোরাচালান

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ২০১৫ সালে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৭৮৬ কোটি ৭২ লাখ ৭৪ হাজার টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রকার চোরাচালান ও মাদক দ্রব্য জব্দ করেছে। বিজিবি সদর দপ্তর এ তথ্য দিয়েছে।

জব্দকৃত মাদকের মধ্যে রয়েছে ৫০ লাখ ৫৬ হাজার ৪১০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৫৩৬ বোতল ফেনসিডিল, ১০ কেজি হেরোইন, ১০ হাজার ১৯৬ কেজি গাঁজা, ৩ লাখ ৯ হাজার ৭৭৬ বোতল বিদেশি মদ, ৬ লাখ ৯২ হাজার ৮৮৭ পিস বিভিন্ন প্রকারের উত্তেজক ট্যাবলেট, ৫৫ হাজার ৪৮০টি নেশাজাতীয় ইনজেকশন এবং ২ কোটি ৫৪ লাখ ৭১ হাজার ৪২৮ পিস বিভিন্ন প্রকারের অবৈধ ট্যাবলেট।

এছাড়াও ১ লাখ ৫৪ হাজার ২০১টি শাড়ি, ৪৪ হাজার ৭৩৫ টি থ্রিপিস/শার্টপিস, ৮ লাখ ১৪ হাজার ২৪৭ মিটার থান কাপড়, ৫৬ হাজার ৮৭০টি তৈরি পোশাক, ৩৯ হাজার ৩৬৪ সিএফটি কাঠ, ১ লাখ ৭৫ হাজার ৮৯৯টি বিভিন্ন প্রকারের যন্ত্রাংশ, ২২ কেজি ৩২৯ গ্রাম সোনা এবং ৩৩ টি কষ্টি পাথরের মূর্তিও গেল বছরে জব্দ করেছে বিজিবি।

গত বছরে বিজিবির অভিযানে উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ৬৭টি পিস্তল, ৪০টি বন্দুক, ৫৪টি বিভিন্ন প্রকারের বোমা ও ককটেল, ৪০৪৩ রাউন্ড গুলি, ৬৩টি ম্যাগাজিন, ২৯টি আইইডি (ইম্প্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) এবং ৪৪ কেজি ৯০০ গ্রাম গান পাউডার।

গত বছরে বিজিবির অভিযানে মাদক পাচারসহ অন্যান্য চোরাচালানে জড়িত থাকার অভিযোগে ২ হাজার ২১৬ জন এবং অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রমের দায়ে ১ হাজার ৪শ ৯২ জন বাংলাদেশি নাগরিককে আটক করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এছাড়া গত বছর সীমান্ত পথে ৬ হাজার ৫৯২ জন মিয়ানমারের নাগরিকের অবৈধ অনুপ্রবেশ প্রতিহত করা হয়েছে।

Facebook Comments