খামিছ (বৃহস্পতিবার), ৩০ মে ২০২৪

১১ জুন গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের গণশুনানী

আর.এফ.এন নিউজ :

গ্যাসের দাম বাড়ানোর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। গত মার্চে গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলো গড়ে ৭৫ শতাংশ দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব পাঠিয়েছিল। তাদের প্রস্তাবের ওপর আগামী ১১ জুন থেকে গণশুনানির আয়োজন করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি), যা চলবে ২১ জুন পর্যন্ত।

চলতি মাস থেকে জাতীয় গ্রিডে আমদানি করা তরল প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) যুক্ত হবে। দেশীয় গ্যাসের চেয়ে এলএনজির দাম বেশি বলে লোকসান কমাতে গ্রাহক পর্যায়ে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো। আবাসিক ও বাণিজ্যিক বাদে সব খাতেই দাম বৃদ্ধির আবেদন করেছে গ্যাস কোম্পানিগুলো।

ঈদুল ফিতরের আগে ও পরে অনুষ্ঠেয় এই শুনানিতে গ্যাস কোম্পানিগুলোর প্রস্তাবের ওপর ব্যবসায়ী সংগঠন, শিল্প মালিক, ভোক্তা প্রতিনিধি, সুশীল সমাজ, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বসহ বিভিন্ন পক্ষের মতামত নেওয়া হবে। পরে সবার মতামত যাচাই-বাছাই করে কমিশন তার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করবে।

১১ জুন গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি-জিটিসিএলের সঞ্চালন মাশুল বৃদ্ধির প্রস্তাবের ওপর শুনানি হবে। ১৩ জুন তিতাস, ১৪ জুন বাখরাবাদ ও জালালাবাদ, ১৮ জুন পশ্চিমাঞ্চল, ১৯ জুন কর্ণফুলী ও ২১ জুন সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানি শুনানিতে অংশ নেবে।

তিতাস গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর মসিউর রহমান জানিয়েছেন, এলএনজি আসার পর গ্যাস সরবরাহের ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। এটা পর্যায়ক্রমে সমন্বয়ের জন্যই গ্রাহক পর্যায়ে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে গ্যাসের দাম গড়ে ২২ দশমিক ৭০ শতাংশ বাড়ানো হয়। একই বছরের মার্চ ও জুলাই থেকে দুই ধাপে তা কার্যকর হয়। বর্তমানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের গড় মূল্য ৭ টাকা ৩৫ পয়সা।

Facebook Comments Box