ইয়াওমুল ইসনাইন (সোমবার), ১৮ অক্টোবর ২০২১

হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদেরকে জানের চেয়েও বেশি মুহব্বত করতে হবে

হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদেরকে জানের চেয়েও বেশি মুহব্বত করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা শুধু মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নন; এছাড়া সমস্ত শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনাদের মালিক হচ্ছেন উনারা
রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার উদ্যোগে আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে “মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা শুধু মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নন; এছাড়া সমস্ত শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনাদের মালিক হচ্ছেন উনারা” শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আলোচনা সভায় মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সু-মহান শান-মান ও মর্যাদা মুবারক নিয়ে আলোচনা করেন রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার প্রতিনিধিরা।

বিশেষ করে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সু-মহান শান-মান ও মর্যাদা মুবারক সারা বিশ্বে ব্যাপকভাবে প্রচার-প্রসারে মুজাদ্দিদে আ’যম, সুলতানুন নাছির ঢাকা রাজারবাগ শরীফের সম্মানিত হযরত শায়েখ আলাইহিস সালাম উনার অবদান মুবারক ও কার্যক্রম তুলে ধরেন, রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার প্রতিনিধি, দৈনিক আল ইহসান শরীফ ও মাসিক আল বাইয়্যিনাত শরীফ পত্রিকার নিয়মিত কলামিষ্ট মুফতী শুয়াইব আহমদ ছাহেব এবং মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ গবেষণা কেন্দ্রের অন্যতম গবেষক ও ইসলামী বহু গ্রন্থ প্রণেতা মুহাদ্দিছ মুহম্মদ আল আমীন ছাহেব। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মুহম্মদ মশিউযযামান বেলাল।

পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ ও পবিত্র না’তু উম্মি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, আখেরী রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত মহাপবিত্র আযওয়াজুম মুত্বহহারাত বা মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা শুধু মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নন; এছাড়া সমস্ত শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনাদের মালিক হচ্ছেন উনারা। সুবহানাল্লাহ! কাজেই, উনাদের মুবারক শানে সর্বোচ্চ বিশুদ্ধ আক্বীদাহ ও হুসনে যন পোষণ করা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজে আইন।

বক্তারা বলেন, মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ উনার ৬নং পবিত্র আয়াত শরীফে ইরশাদ মুবারক করেন, “নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা মু’মিনদের নিকট জানের চেয়েও অধিক প্রিয় এবং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন সমস্ত সৃষ্টির মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র পিতা ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এবং মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা হচ্ছেন সমস্ত সৃষ্টির মহাসম্মানিত মাতা আলাইহিন্নাস সালাম।” অতএব, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদেরকে মহাসম্মানিত মাতা হিসেবে মেনে উনাদেরকে জানের চেয়েও বেশি মুহব্বত করতে হবে। অন্যথায় ঈমানদার হওয়া কখনোই সম্ভব হবেনা।

বক্তারা বলেন, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা মোট তেরজন। উনাদের সংখ্যা তেরজনের কম বা বেশি বলা কুফরী। উনাদের মধ্যে প্রথম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদিজাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন আল ঊলা সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে দ্বিতীয় উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত সাওদাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছানিয়াহ আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে তৃতীয় উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আয়িশাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দিক্বাহ আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে চতুর্থ উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত হাফছাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আর রবি‘য়াহ ইবনাতু আবিহা আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে ৫ম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত যায়নাব বিনতে খুযায়মাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল খমিসাহ উম্মুল মাসাকীন আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে ষষ্ঠ উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু সালামাহ বিনতে আবি উমাইয়্যাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আস সাদিসাহ আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে সপ্তম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাইনাব বিনতে জাহাশ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আস সাবিয়াহ আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে অষ্টম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত জুওয়াইরিয়া বিনতে হারিছ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছামিনাহ আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে নবম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত রায়হানা বিনতে শামউন আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত তাসিয়াহ আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে দশম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছফিয়্যাহ বিনতে হুইয়াই আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল ‘আশিরাহ আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে একাদশতম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মু হাবীবাহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ ‘আশার আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে দ্বাদশতম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত মারিয়াহ কিবতিয়াহ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছানিয়াহ ‘আশার আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে। উনাদের মধ্যে তেরতম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত মাইমুনাহ বিনতে হারিছ আলাইহাস সালাম। উনাকে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছালিছাহ ‘আশার আলাইহাস সালাম বলে সম্বোধন করতে হবে।

রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার প্রতিনিধিরা বলেন, মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ উনার ৩২নং পবিত্র আয়াত শরীফে ইরশাদ মুবারক করেন, “হে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম! আপনারা কোনো পুরুষ-মহিলা তথা সৃষ্টির কারো মতো নন।” তাই, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের সমুন্নত শান-মান মুবারক নিয়ে সংশয় ও সন্দেহ করা, উনাদের সমালোচনা করা সুস্পষ্ট হারাম ও কবীরাহ গুণাহ এবং কঠিন লা’নতগ্রস্ত হওয়ার কারণ। মূলত, উনারাই হচ্ছেন ঈমান। উনাদের প্রতি ঈমান আনলে ঈমানদার হওয়া যায়। উনারাই জান্নাতের মালিক। উনাদের প্রতি ঈমান না আনলে ঈমানদার হওয়া যায়না। জান্নাতীও হওয়া যায়না। পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ অনুসারে উনাদের মানহানীকারীর একমাত্র শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। তাই, যে বা যারাই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে, অনলাইনে বা অফলাইনে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মানহানীর অপচেষ্টা করছে, তাদের ব্যাপারে ‘শরয়ী শাস্তি মৃত্যুদণ্ড’ বাস্তবায়ন করতে হবে। যা বিশ্বের প্রত্যেক মুসলিম দেশের সরকারের জন্য ফরজে আইন।

বক্তারা বলেন, মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের পবিত্র জীবনী মুবারক নিয়ে গবেষণা করার জন্য কোটি কোটি স্বতন্ত্র গবেষণা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রত্যেক শ্রেণীতে এবং প্রতিটি সিলেবাসে উনাদের বিশুদ্ধ পবিত্র জীবনী মুবারক আবশ্যিকভাবে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। উনাদের পবিত্র জীবনী মুবারক নিয়ে রাজারবাগ শরীফ হতে বহু সংখ্যক কিতাব প্রকাশিত হয়েছে। সবার উচিত সেই কিতাবগুলো সংগ্রহ করে পাঠ করা।

বক্তারা আরো বলেন, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক সম্মানার্থে অনন্তকালব্যাপী জারীকৃত পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ মাহফিল উনার মধ্যে বিশেষ আয়োজন হিসেবে গত ২৮শে মুহররম শরীফ ১৪৪৩ হিজরী, ৮ রবি’ ১৩৮৯ শামসী মুতাবিক ৬ সেপ্টেম্বর হতে রাজারবাগ দরবার শরীফে শুরু হয়েছে ৬৩ দিনব্যাপী বিশেষ মাহফিল। সেখানে সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের পবিত্র সাওয়ানেহ উমরী বা পবিত্র জীবনী মুবারক হতে প্রতিদিন আলোচনা-পর্যালোচনা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মুসলিম উম্মাহ সকলের উচিত উক্ত বেমেছাল বরকতময় মাহফিলে অংশগ্রহণ করা।

 

 

Facebook Comments Box