ইয়াওমুস ছুলাছা (মঙ্গলবার), ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

সারারাত বৃষ্টিতে ১০ ফুট উঁচু ফেনার স্তূপ : বেঙ্গালুর

আর.এফ.এন ‍ নিউজ :

দেখে মনে হতে পারে বরফ বা তুলার স্তূপ। কিন্তু না এগুলো দূষিত ফেনা। ছবি: সংগৃহীতপ্রথম দেখায় মনে হতে পারে কাশ্মীর বা কিংবা পশ্চিমা শীতের কোনো দেশ। কিন্তু আসলে তা না। এটা ভারতের বেঙ্গালুরুর দৃশ্য। আর দেখতে বরফের মতো মনে হলেও এগুলো আসলে ফেনা। প্রবল বৃষ্টির জেরে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে এ ফেনা। তবে এগুলো দূষিত ফেনা।

কর্ণাটকের রাজধানীর বেঙ্গালুরুর বেলান্দুর লেকটি ৯০০ একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত। এই লেক এবং ওই শহরের আরও কয়েকটি লেকের দূষণের কারণে প্রায়ই খবরের শিরোনাম হয়। আর সোমবার রাতভর বৃষ্টি শেষে পরদিন সকালবেলা দেখা গেল ফেনার স্তূপ। ভারতের অন্যতম ব্যস্ত এই শহরের কয়েকটি রাস্তায় ফেনার স্তূপ কয়েক ফুট উঁচু। বেঙ্গালুরুর শহরে এমন দৃশ্য দেখে অনেকেই চিন্তিত হয়ে পড়েন। এই ফেনা ছড়িয়ে পড়েছে শহরের অনেক জায়গায়। কোথাও কোথাও এই ফেনার উচ্চতা ১০ ফুট।রাতভর বৃষ্টির পরই বেঙ্গালুরু শহরে এমন দৃশ্য দেখা যায়। ছবি: সংগৃহীত

বেলান্দুর লেকসহ শহরের অন্য লেকগুলোর দূষণ দীর্ঘদিন ধরেই চিন্তার কারণ হয়ে আছে রাজ্য সরকারের। দূষণের কারণে ভারী বৃষ্টি হলেই ফেনার স্তূপ হওয়ার মতো ঘটনা ঘটে। দূষণের জেরে এর আগে অগ্নিকাণ্ডের মতো ঘটনাও ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতেই পারছে না প্রশাসন।

বেঙ্গালুরুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় বেঙ্গালুরুতে প্রবল বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির গড় পরিমাণ ৪ সেন্টিমিটার। বৃষ্টি আরও চার দিন চলতে পারে।কয়েক মাস আগে বেলান্দুরু লেকের দূষিত ফেনা ছড়িয়ে পড়েছিল পাশের জেলা শহরেও। এই লেককে ঘিরে সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে বড় ঘটনাটি ঘটেছিল গত বছরের জানুয়ারিতে। বড় অগ্নিকাণ্ডের সাক্ষী বেলান্দুর লেক। হাজারো সেনাসদস্য কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছিলেন।

কর্ণাটকের দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের প্রধান লক্ষণ বলেন, ‘আমরা এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া শুরু করেছি। এখান থেকে কাউকে পানি নিতে নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে।’

তথ্যসূত্র: এন.ডি.টিভি।

Facebook Comments Box