ইয়াওমুল ইসনাইন (সোমবার), ০৮ মার্চ ২০২১

র‌্যাব-পুলিশ ও সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য হচ্ছে আবাসিক ভবন

নিজস্ব প্রতিবেদক: র‌্যাব, পুলিশ ও সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য ৪২৭ কোটি ৮৬ লাখ ২৩ হাজার ৪৪ টাকা ব্যয়ে আবাসিক ভবন নির্মাণের তিনটি পৃথক প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। বৈঠকে মোট এক হাজার ৫১ কোটি ৫০ লাখ ৪০ হাজার টাকা ব্যয়ে ৫টি ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বুধবার অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে এক বৈঠকে ক্রয় প্রস্তাবগুলোর অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, আজ অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ৬ষ্ঠ এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ৭ম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদনের জন্য ৩টি এবং ক্রয়সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদনের জন্য ৫টি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। ক্রয় কমিটির প্রস্তাবগুলোর মধ্যে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের ৩টি এবং জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের ২টি প্রস্তাব ছিল। ক্রয় কমিটির অনুমোদিত ৫টি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ এক হাজার ৫১ কোটি ৫০ লাখ ৪০ হাজার ৫১২ টাকা। মোট অর্থায়নের মধ্যে সম্পূর্ণ অর্থই জিওবি থেকে ব্যয় হবে।

এরপর অনুমোদিত প্রস্তাবগুলোর বিস্তারিত তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল। তিনি জানান, বৈঠকে র‌্যাব ফোর্সেস সদর দপ্তর নির্মাণ প্রকল্পের ডব্লিউডি-১ লটের আওতায় র‌্যাব সদর দপ্তরে ১২তলা ব্যাচেলার অফিসার্স কোয়ার্টার্স, ১০তলা ফোর্স ব্যারাক এবং ৮তলা ডিএডি মেস কাম এমটি শেড নির্মাণ কাজের জন্য উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বান করলে ২টি দরপত্র জমা পড়ে, যার মধ্যে ১টি রেসপনসিভ হয়। দরপত্রের সকল প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশকৃত একমাত্র রেসপনসিভ দরদাতা প্রতিষ্ঠান মজিদ সন্স কন্সট্রাকশন লিমিটেডের কাছ থেকে ১৯২ কোটি ৪ লাখ ৩২ হাজার ৩২৬ টাকায় বর্ণিত নির্মাণ কাজ ক্রয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্যাকেজের আওতায় ১২তলা ব্যাচেলার অফিসার্স কোয়ার্টার্স, ১০তলা ফোর্স ব্যারাক এবং ৮তলা ডিএডি মেস কাম এমটি শেড, অভ্যন্তরীণ স্যানিটারি ও বৈদ্যুতিকরণ, গ্যাস সংযোগ, লিফট, পাম্প, মটর, পিএবিএক্স ইন্টারকম, অগ্নি নির্বাপন স্থাপন ইত্যাদি কাজ করা হবে।

বৈঠকে অনুমোদিত অন্যান্য প্রস্তাবগুলো হলো: বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে বাংলাদেশ পুলিশের জন্য ৯টি আবাসিক টাওয়ার ভবন নির্মাণ’ প্রকল্পের একটি লটের আওতায় সিলেট জেলা পুলিশ লাইন্স এলাকায় ১টি ১৫ তলা আবাসিক ভবন নির্মাণ কাজের জন্য উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বান করলে ২টি দরপত্র জমা পড়ে, যা রেসপনসিভ হয়। দরপত্রের সকল প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশকৃত রেসপনসিভ সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে মেসার্স বাংলা বিল্ডার্স লিমিটেড (বিবিএল) ও মেসার্স এল জেআই-এর কাছ থেকে ৫৯ কোটি ৬৩ লাখ ১৩ হাজার ৩৮৭ টাকায় সিলেট জেলা পুলিশ লাইন্স এলাকায় ১টি ১৫ তলা আবাসিক ভবন নির্মাণ কাজ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। এই প্যাকেজের আওতায় ১৫ তলা আবাসিক ভবন, প্রতি তলায় ১০০০ বর্গ ফুট বিশিষ্ট ৮টি ইউনিট, অভ্যন্তরীণ স্যানিটারি ও বৈদ্যুতিকরণ, ভূ-গর্ভস্থ নিরাধার, গভীর নলকূপ, পাম্প মোটর, রাস্তা, বাউন্ডারি ওয়াল এবং অভ্যন্তরীণ আরসিসি রোড ইত্যাদি নির্মাণ করা হবে।

এছাড়া ঢাকাস্থ আজিমপুর সরকারি কলোনির অভ্যন্তরে (জোন-এ) সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য ২০ তলা বিশিষ্ট ২টি আবাসিক ভবন নির্মাণসহ আনুষঙ্গিক পূর্ত কাজ ক্রয়ের জন্য উন্মুক্ত পদ্ধতিতে দরপত্র আহবান করলে ১টি মাত্র দরপত্র জমা পড়ে, যা রেসপনসিভ হয়। দরপত্রের সকল প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সুপারিশকৃত রেসপনসিভ একমাত্র দরদাতা প্রতিষ্ঠান পদ্মা অ্যাসোসিয়েটস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের কাছ থেকে ১৭৬ কোটি ১৮ লাখ ৭৭ হাজার ৩৩২ টাকায় ঢাকাস্থ আজিমপুর সরকারি কলোনির অভ্যন্তরে সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য ২০ তলা বিশিষ্ট ২টি আবাসিক ভবন নির্মাণ কাজ ক্রয়ের প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি।

Facebook Comments