ইয়াওমুল ইসনাইন (সোমবার), ২৯ নভেম্বর ২০২১

রাজারবাগ দরবার শরীফ নিয়ে মানহানিকর বক্তব্যের প্রতিবাদে একাধিক ইমাম-খতীবকে আইনী নোটিশ

রাজারবাগ দরবার শরীফ নিয়ে মানহানিকর বক্তব্যের প্রতিবাদে একাধিক ইমাম-খতীবকে আইনী নোটিশ

জয়পুরহাট সংবাদাদাতা: মসজিদের জুমুয়ার বয়ানে পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ এবং রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার সম্মানিত পীর সাহেব এবং রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার পক্ষ থেকে প্রকাশিত মাসিক আল বাইয়্যিনাত শরীফ-এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার মিথ্যা, মানহানীকর, বিভ্রান্তিমূলক এবং ফিৎনা সৃষ্টিকারী বক্তব্য পেশ করার প্রতিবাদে জয়পুরহাটের ৩টি মসজিদের ইমাম-খতীবকে আইনী নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট মসজিদের মুসল্লির পক্ষ থেকে এই আইনী নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নোটিশে উক্ত ইমাম-খতীবদের বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের জবাবে বলা হয়েছে, মাসিক আল বাইয়্যিনাত পত্রিকার বিভিন্ন লিখনীতে এবং রাজারবাগ দরবার শরীফ এর পক্ষ হইতে যে কোন প্রকার কিতাবাদীতে প্রচুর পরিমান দলিল আদিল্লাহ দেওয়া হয় এবং পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ মূলত নূরে মুজাসসাম, হাবিবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার তাশরীফ মুবারক উপলক্ষে এবং উনার সম্মানার্থে পালন করা হয়।

নোটিশে বলা হয়, পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ পালন এবং পবিত্র রাজারবাগ শরীফ উনার কোন লিখনী বা বক্তব্য নিয়ে কোন প্রকার মন্তব্য থাকলে তা রাজারবাগ দরবার শরীফ এর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত না করে কিংবা উক্ত লিখনীর প্রকৃত বিষয়সমূহ আরও ভালভাবে অনুধাবনের চেষ্টা না করে জনসম্মুখে বিভিন্ন প্রকার মিথ্যা, মানহানীকর, বিভ্রান্তিমূলক এবং ফিৎনা সৃষ্টিকারী বক্তব্য দেয়া সুস্পষ্টভাবে দ্বীনি অনুভূতিতে চরমভাবে আঘাত।

বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে, ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার পক্ষ হইতে বহু পূর্বে উক্ত দরবার শরীফ হইতে যে কোন প্রকার বক্তব্য কিংবা লিখনী বিষয়ে শর্তসাপেক্ষে প্রকাশ্য বাহাছ করিবার ঘোষণা দেওয়া হইয়াছে।

এমতাবস্থায়, নোটিশ প্রাপ্তির ৭ (সাত) দিনের মধ্যে উক্ত মিথ্যা, মানহানীকর, বিভ্রান্তিমূলক এবং ফিৎনা সৃষ্টিকারী বক্তব্যসমূহ প্রত্যাহার করে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করার আহ্বান জানানো হয়েছে এবং প্রয়োজনে শর্ত সাপেক্ষে প্রকাশ্যে বাহাছ করার কথা বলা হয়েছে। অন্যথায় উক্ত মিথ্যা, মানহানীকর, বিভ্রান্তিমূলক এবং ফিৎনা সৃষ্টিকারী বক্তব্যের জন্য তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা বলা হয়েছে।

Facebook Comments Box