ইয়াওমুল ইসনাইন (সোমবার), ১৮ অক্টোবর ২০২১

রাজারবাগ দরবার শরীফ নিয়ে গুজব ছড়ানোর দায়ে এনটিভি কর্তৃপক্ষকে আইনী নোটিশ

রাজারবাগ দরবার শরীফ নিয়ে গুজব ছড়ানোর দায়ে এনটিভি কর্তৃপক্ষকে আইনী নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফ সম্পর্কে মিথ্যা, বানোয়াট, আপত্তিকর, বেআইনি ও ইসলামবিদ্বেষী সংবাদ প্রচার করার অপরাধে এনটিভি কর্তৃপক্ষকে আইনী নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

গতকাল ইয়াওমুল খামীস গতকাল ইয়াওমুল খমিস বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার মুখপাত্র আল্লামা মুহম্মদ মাহবুব আলমের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট হুজ্জাতুল ইসলাম আলফেসানী এই আইনী নোটিশটি প্রেরণ করেন।

নোটিশ বলা হয়, ন্যাশনাল টেলিভিশন চ্যানেল (এনটিভি) অনলাইনে গত ৫ অক্টোবর ২০২১ তারিখে ‘হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ আদেশ রাজারবাগ পীরের সম্পদের উৎস জানতে চায় হাইকোর্ট’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের মধ্যে প্রচার করা হয়, ‘ধর্মের নামে সাধারণ মানুষকে ধোঁকা ও প্রতারণা বন্ধে ‘রাজারবাগ পিরে’র সব আস্তানা বন্ধের নির্দেশ দেয় আদালত।’
অথচ প্রকৃতপক্ষে আদালত কর্তৃক এমন নির্দেশনা না থাকলেও এনটিভি কর্তৃপক্ষ সম্পূর্ণ মিথ্যা, মনগড়া ও বানোয়াট তথ্যকে আদালতের বরাত দিয়ে প্রচার করায় একদিক থেকে আদালত অবমাননা করেছে, আবার সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বর্তমানে দ্বীন ইসলামের ধারক-বাহক ও মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের হক্ব দরবার শরীফ পবিত্র ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফের মহাসম্মানিত সাইয়্যিদুনা হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার সম্পর্কে মিথ্যা, বানোয়াট, দূরভিসন্ধিমূলক ও সাজানো সংবাদ পরিবেশন করে বাংলাদেশের আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন করেছেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮-এর ২৮ (১) ধারায় বলা হয়েছে: যদি কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠী ইচ্ছাকৃতভাবে বা জ্ঞাতসারে ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে আঘাত করিবার বা উস্কানি প্রদানের অভিপ্রায়ে ওয়েবসাইট বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা প্রচার করেন বা করান, যাহা ধর্মীয় অনুভূতি বা ধর্মীয় মূল্যবোধের উপর আঘাত করে, তাহা হইলে উক্ত ব্যক্তির অনুরূপ কার্য হইবে একটি অপরাধ।

ওই আইনের ২৮(২) ধারায় বলা হয়েছে: যদি কোনো ব্যক্তি উপ-ধারা (১) এর অধীন কোনো অপরাধ সংঘটন করেন, তাহা হইলে তিনি অনধিক ৫ (পাঁচ) বৎসর কারাদ-ে, বা অনধিক ১০ (দশ) লক্ষ টাকা অর্থদ-ে, বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হইবেন।

একই আইনের ২৯ ধারায় বলা হয়েছে: (১) যদি কোনো ব্যক্তি ওয়েবসাইট বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে মানহানিকর তথ্য প্রকাশ বা প্রচার করেন, তজ্জন্য তিনি অনধিক ৩ (তিন) বৎসর কারাদ-ে, বা অনধিক ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকা অর্থদ-ে, বা উভয় দ-ে দ-িত হইবেন।

নোটিশ আরও বলা হয়, এ ধরণের সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে নোটিশদাতার ধর্মীয় মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে চরম আঘাত প্রদান করা হয়েছে।

এমতাবস্থায় এই নোটিশ পাওয়ার এক কার্যদিবসের মধ্যে উল্লেখিত মিথ্যা, বানোয়াট, আপত্তিকর, বেআইনি ও ধর্মবিদ্বেষী কথিত সংবাদটি প্রত্যাহার করে প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করার আহ্বান জানানো হয়েছে। এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের বেআইনি কার্যক্রম থেকে নিজেদেরকে বিরত রাখার অঙ্গীকার করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে সতর্ক করা হয়।

Facebook Comments Box