খামিছ (বৃহস্পতিবার), ৩০ মে ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ‘প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা’ নেয়ার হুমকি রাশিয়ার

মস্কো: বাল্টিক সাগরে রাশিয়া সীমান্তের খুব কাছাকাছি যুদ্ধজাহাজ পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ভয় প্রদর্শন করেছে বলে বুধবার অভিযোগ করেছে রাশিয়া। এবং সাথে সাথে যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ার করে বলেছে যে, ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটলে রাশিয়া সামরিক বাহিনী এর জবাব দিতে প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যবস্থা নেবে।

ন্যাটো ও রাশিয়ার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক এক বৈঠকের পর ন্যাটোতে মস্কোর রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্দার গ্রুসকো বলেন, ১১ এপ্রিলের ঘটনা দেখিয়েছে যে, যতক্ষণ পর্যন্ত ন্যাটো জোট রাশিয়ার সীমান্ত থেকে নিজেদেরকে গুটিয়ে না নিচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত সম্পর্কের কোনো উন্নতি হবে না।

রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্দার গ্রুশকোস বলেন, ‘এই ঘটনা রাশিয়ার উপর এক ধরণের সামরিক ক্ষমতা চর্চা করার চেষ্টা। সামরিক ক্ষমতা চর্চার এই ধরণের চেষ্টার জবাব দিতে আমরা সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করব’।

অন্যদিকে ন্যাটোতে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ডগলাস লিউত বাল্টিক সাগরের ঘটনার জন্য রাশিয়াকে দায়ী করেছেন। তিনি বলেন, যুদ্ধজাহাজ মিশাইল ডেস্ট্রয়ার ইউএসএস কুক তাদের নিয়মিত কাজের অংশ হিসেবে পোল্যান্ডের নিকট বাল্টিক সাগরে অবস্থান করছিল। এই সময় রাশিয়ার যুদ্ধবিমান জাহাজের অতি নিকট দিয়ে বেশ কয়েকবার উড়ে যায়।

ন্যাটো-রাশিয়া বৈঠককালে ডগলাস লিউট এই ঘটনাকে ভয়ঙ্কর বলে বর্ণনা করে বলেন, ‘আমরা আন্তর্জাতিক জলসীমায় অবস্থান করছিলাম’।

এই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় গত সপ্তাহে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেন, যুদ্ধজাহাজের উচিৎ ছিল রাশিয়ার যুদ্ধবিমানের উপর গুলিবর্ষণ করা।

সূত্র: মেইল অনলাইন

Facebook Comments Box