ছুলাছা (মঙ্গলবার), ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বুধবার চালু হচ্ছে মিরপুর-১০ মেট্রোস্টেশন

নিউজ ডেস্ক: মেট্রোরেলের পঞ্চম স্টেশন হিসেবে মিরপুর-১০ নম্বর স্টেশন যাত্রী চলাচলের জন্যে পুরোপুরি প্রস্তুত। আগামীকাল বুধবার (১ মার্চ) সকাল সাড়ে ৮টা থেকে মিরপুর-১০ নম্বর স্টেশন থেকে যাত্রী চলাচলের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে।

মিরপুর-১০ স্টেশনের মধ্য দিয়ে প্রথম কোনো জনবহুল এলাকায় মেট্রোস্টেশন চালু হচ্ছে। এর আগে চালু হওয়া উত্তরা উত্তর, আগারগাঁও, পল্লবী, উত্তরা সেন্টার স্টেশন চালু হলেও কোনো স্টেশন জনবহুল এলাকায় ছিল না।

১ মার্চ থেকে মিরপুর-১০ মেট্রোস্টেশন চালু করার কথা জানিয়েছেন ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এন সিদ্দিক।

সকাল সাড়ে ৮টা থেকে মিরপুর-১০ স্টেশনে যাত্রী চলাচল শুরু হবে। এর আধা ঘণ্টা আগে সকাল ৮টা থেকে স্টেশন যাত্রীদের জন্যে উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর-১০ স্টেশনে সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় শেষ প্রস্তুতি হিসেবে স্টেশনের পরিচ্ছন্নতার কাজ চলছে।

ডিএমটিসিএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এন সিদ্দিক  বলেন, আগামীকাল আমাদের অপারেশন টিম মিরপুর-১০ স্টেশন খুলে দেবে। আমরা আগেই বলেছিলাম পর্যায়ক্রমে মেট্রোরেলের স্টেশনগুলো খুলে দেওয়া হবে।

জনবহুল এলাকায় মেট্রোরেল চালুর জন্য মেট্রোরেলের জনবল প্রস্তুত কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মিরপুর-১০ স্টেশনে চাপ হবে জেনেই পরিকল্পনা অনুযায়ী জনবল প্রস্তুত করেছি। কোনো ঘাটতি নেই।

তবে নতুন এলাকায় স্টেশন চালু হলে অভ্যস্ত হতে ১৫-২০ দিন লেগে যায় জানিয়ে ডিএমটিসিএল এমডি বলেন, সময়ের সাথে সাথে মানুষ অভ্যস্ত হয়ে যায়।

অন্যদিকে বিভিন্ন টাকার নোটে টিকিট কাটতে ভোগান্তির বিষয়ে তিনি বলেন, পুরাতন নোটগুলো অপারেটিং সিস্টেমে দেওয়া হয়নি, তবে নতুন নোটগুলো অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে দেওয়া হয়েছে। এ সমস্যার সমাধান হচ্ছে।

মিরপুর-১০ স্টেশনের কর্তব্যরত এক কর্মকর্তা বলেন, আমাদের ধারণা অন্য স্টেশনগুলোর তুলনায় মিরপুর-১০ স্টেশনে যাত্রীর চাপ বেশি থাকবে। এই চাপ সামলাতে যে জনবল প্রয়োজন সেটা এখানে প্রস্তুত রয়েছে।

মিরপুর-১০ স্টেশনের কর্মরত শ্রমিক শাহিন হোসেন বলেন, আমরা ধোয়া-মোছার কাজ করছি। কাল এ স্টেশন উদ্বোধন হবে বলে আমাদের দ্রুত কাজ শেষ করতে বলা হয়েছে।

মিরপুর অঞ্চলের বাসিন্দারা খুশি মেট্রোরেলের এই স্টেশন চালু করায়। এর ফলে স্বাচ্ছন্দ্যে ও নিরাপদে মিরপুর, আগারগাঁও ও ফার্মগেট এলাকায় যাত্রীরা যাতায়াত করতে পারবেন।

মিরপুর-১০ এালাকার বাসিন্দা আশিকুর রহমান বলেন, উত্তরা কিংবা আগারগাঁও এখন থেকে খুব অল্প সময়ের মধ্যে যেতে পারবো।

অন্যদিকে মেট্রোরেলের একটি সূত্র জানিয়েছে, জুলাই থেকে সারা দিন মেট্রোরেল চালানোর কথা থাকলেও সে অনুযায়ী পদক্ষেপ নিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। জনবল নিয়োগ ও তাদের প্রশিক্ষণ সময়সাপেক্ষ হওয়ায় আরও কয়েক মাস বাড়তি সময় লেগে যেতে পারে।

ঢাকার উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ২১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের প্রথম মেট্রোরেল যেটা এমআরটি লাইন-৬ নামে পরিচিত। এ প্রকল্প সরকার হাতে নেয় ২০১২ সালে। ২৮ ডিসেম্বর এই পথের প্রথমাংশ উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত চালু হলেও দ্বিতীয় অংশ আগারগাঁও থেকে মতিঝিল ২০২৩ সালের শেষ দিকে চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।

Facebook Comments Box