ইয়াওমুস সাবত (শনিবার), ২৪ জুলাই ২০২১

বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে লকডাউন বৃদ্ধি করতে বলায় আইনী নোটিশ

বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে লকডাউন বৃদ্ধি করতে বলায় আইনী নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে গুজব ছড়িয়ে মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করা এবং লকডাউন আরও বৃদ্ধি করা নিয়ে বক্তব্য দেয়ার দায়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের সাবেক উপদেষ্টা মোজাহেরুল হককে সতর্ক করে আইনী নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

গতকাল ইয়াওমুল আরবিয়া বুধবার, ১৪ জুলাই) দৈনিক আল ইহসান ও মাসিক আল বাইয়্যিনাত পত্রিকার সম্পাদক আল্লামা মুহম্মদ মাহবুব আলমের পক্ষ থেকে এই নোটিশ পাঠানো হয়।

লকডাউন বৃদ্ধি নিয়ে বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের জবাব দিয়ে নোটিশে বলা হয়, বাংলাদেশের করোনা পরিস্থিতি সম্বন্ধে তার এ ধরণের বক্তব্য বাস্তবতাবর্জিত, অবৈজ্ঞানিক ও বিভ্রান্তিকর। লকডাউন/শাটডাউন করোনার মৃত্যুহার থামাতে পারে- এমন মন্তব্যের কোনো প্রমাণিত বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। কারণ সারা বিশ্বে যেসব দেশে করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে (মিলিয়ন জনসংখ্যা মৃত্যুহার), তার প্রথম ১০টিতেই লকডাউন হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এক আলোচনায় বলেন, বাংলাদেশে প্রতিদিন গড়ে ২৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়। তিনি বলেন যে, এর মধ্যে ৬৫ ভাগ বিভিন্ন অসংক্রামক ব্যধিতে মারা যান। ২৪ ভাগ মানুষ মারা যান বার্ধক্যজনিত কারণে। এই মৃত্যু স্বাভাবিক মৃত্যু। করোনার কারণে এই মৃত্যুর হার বাড়েনি বরং বাংলাদেশে যে স্বাভাবিক মৃত্যু আছে সেটাই বজায় রয়েছে। তিনি আরো বলেন, যে কোন মৃত্যুই করোনাজনিত মৃত্যু এই ভ্রান্ত ধারণা ঠিক নয়। এটি একটি ভ্রান্ত ধারণা। বাংলাদেশে যে স্বাভাবিক মৃত্যুর হার ছিল তার কোন পরিবর্তন এখন পর্যন্ত হয়নি।

নোটিশে আরও বলা হয়, লকডাউনের কারনে দরিদ্র লোকজন এমনকি মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত অনেক পরিবার চরম দুর্ভোগের সাথে দিনাতিপাত করছে। দেশের বর্তমান অবস্থায় তাদের মন্তব্যসমূহের কারণে জনমনে অহেতুক আতংক সৃষ্টি হতে পারে এবং সাধারণ মানুষ ব্যাপকভাবে বিভ্রান্তির শিকার হতে পারেন। চলমান পরিস্থিতিতে গুজব কিংবা অতিরঞ্জিত তথ্য প্রকাশ না করার জন্য সরকারের তরফ থেকে বারবার আহবান জানানো হয়েছে। এই অবস্থায় আপনার মন্তব্য দেশের পরিস্থিতিকে অহেতুক ঘোলাটে করে ফেলতে পারে। যাহা বাংলাদেশে প্রচলিত আইনে দ-নীয় অপরাধ।

এমতাবস্থায় তার এহেন বিতর্কিত ও বিভ্রান্তিক বক্তব্য প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments Box