ইয়াওমুল আহাদ (রবিবার), ১৩ জুন ২০২১

বাংলাদেশ-সৌদি সম্পর্কের শেকড় অনেক গভীরে

বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যকার বন্ধুত্বপূর্ণ সুসম্পর্ক নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের বিশেষ সম্পর্ক রয়েছে। এ সম্পর্কের শেকড় অনেক গভীরে।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় সৌদি যুবরাজ তুর্কি বিন আব্দুল্লাহ এবং ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) প্রেসিডেন্ট ড. আহমদ মোহাম্মদ আলী গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি এ কথা বলেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ সাক্ষা‍ৎ অনুষ্ঠান হয়।

পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন।

বিশ্বে বাংলাদেশ তৃতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের গভীর ধর্মীয় ও আত্মিক সংযোগ রয়েছে।

এসময় তিনি জাহাজ নির্মাণসহ বিভিন্ন খাতে আরও সৌদি বিনিয়োগের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতার আরও ক্ষেত্র খুঁজে বের করার ওপর জোর দিতে বলেন।

কিং আব্দুল্লাহ হিউমানিটারিয়ান অ্যান্ড চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন ‘ফায়েল খায়ের’ এরও প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় সৌদি যুবরাজ বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ আক্রান্ত বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জরুরি আশ্রয়ের জন্য ফায়েল খায়ের দীর্ঘ মেয়াদী সমাধান।

সৌদি যুবরাজ ও আইডিবি প্রেসিডেন্ট মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) ঘূর্ণিঝড় সিডরে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ‘ফায়েল খায়ের’ প্রকল্পের অধীনে নির্মিত কয়েকটি স্কুল কাম সাইক্লোন সেন্টারের উদ্বোধন করবেন।

আইডিবির অধীনে ফায়েল খায়ের প্রকল্পের মাধ্যমে বাংলাদেশে ১৮০টি বিদ্যালয় ও ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের কাজ চলছে।

এরমধ্যে ২০১৪ সালের ২৮ এপ্রিল ২৪টি আশ্রয়কেন্দ্র ও স্কুল নির্মাণের কাজ শেষ করে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করাও হয়েছে।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বাকি ১৫৬টি স্কুল কাম সাইক্লোন সেন্টার নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়েছে; যা মঙ্গলবার উদ্বোধন করা হবে।

তুর্কি বিন আব্দুল্লাহ বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে সহযোগিতায় আগ্রহ প্রকাশ করেন।

আইডিবি’র প্রেসিডেন্ট ড. আহমদ মোহাম্মদ আলী বিগত বছরগুলোতে বাংলাদেশের অর্থনীতির ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধির প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, আইডিবি বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অব্যাহতভাবে কাজ করবে।

এসময় প্রধানমন্ত্রী গত অর্থবছরে বাংলাদেশ জিডিপি ৬ দশমিক ৫ শতাংশ অর্জন করেছে উল্লেখ করে এ বছর এটা ৭ শতাংশের বেশি হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

সাক্ষাতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব আবুল কালাম আজাদ, ইআরডি’র সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহউদ্দিন।

দু‘দিনের সফরে সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকা আসেন সৌদি যুবরাজ ও আইডিবি প্রেসিডেন্ট। মঙ্গলবারই তাদের ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে।

Facebook Comments Box