ইয়াওমুল খামিছ (বৃহস্পতিবার), ০৫ আগস্ট ২০২১

ফিলিস্তিনি নেতাদের ‘গুপ্তহত্যার নীতি’তে যাচ্ছে ইসরায়েল

নেতানিয়াহুর বাড়ির সামনে হাজারো মানুষের বিক্ষোভ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গাজায় অবস্থান করা ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ গোষ্ঠীর নেতাদের বিরুদ্ধে ‘গুপ্তহত্যার নীতি’ ফিরিয়ে আনার ঘোষণা দিয়েছে ইহুদীবাদী ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরাইল কাটজ। গত ২৬ ডিসেম্বর তুরস্কের সরকারী পত্রিকা ডেইলি সাবাহ’তে খবরটি প্রকাশিত হয়।

গত বৃহস্পতিবার ইসরাইল জানায়, গাজা স্ট্রিপে যেসব ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ গ্রুপ রয়েছে তাদের নেতাদের গুপ্তহত্যা করার নীতি ফিরিয়ে আনবে ইহুদীবাদী তেল আবিব।

প্রসঙ্গত, ২৫ ডিসেম্বর, বুধবার গাজা হতে ইহুদীবাদী ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলে রকেট হামলা করে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়। এসময় আশকেলন শহরে বিতর্কিত ইহুদীবাদী ইসরাইলের কথিত প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু নিজ দল লিকুদ পার্টির নেতা নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা করছিলো। রকেট হামলার পর তাকে স্টেজ থেকে তাড়াহুড়ো করে নামানো হয়। সাইরেন বেজে উঠার পর নিরাপত্তারক্ষীরা তাকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যায়। এছাড়া সেপ্টেম্বর মাসেও আসদোদ শহরে নির্বাচনী প্রচারণার সময় রকেট হামলার কারণে তড়িঘড়ি করে স্টেজ ছেড়ে চলে গিয়েছিলো এই ইহুদীবাদী নেতানিয়াহু।

গত বুধবারের হামলার বদলা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কথিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরাইল কাটজ জানায়, রকেট হামলার জন্য যারা দায়ী তাদের বের করার জন্য গোয়েন্দা তৎপরতা চলছে। শনাক্ত করতে পারলে তাদের চিরতরে নির্মূল করে দেয়া হবে। অবশ্য ফিলিস্তিনিদের কোন গ্রুপ এখনো পর্যন্ত বুধবারের রকেট হামলার দায় স্বীকার করে কোন বিবৃতি দেয়নি।

নভেম্বর মাসে ফিলিস্তিনি একটি গোষ্ঠীর রকেট হামলার বদলা নেয়ার জন্য গাজায় বিমান হামলা করে ইহুদীবাদী ইসরায়েল। পাঁচদিন ধরে চলা ওই সংঘর্ষে গাজার নিরীহ নারী, শিশুসহ অনেকেই প্রাণ হারিয়েছিলেন। এমনকি ইহুদীবাদী ইসরায়েলি বিমান হামলায় একই পরিবারের ৮ জন সদস্য মারা যায়।

এরপর মিশরের মধ্যস্থতায় দুই পক্ষের মধ্যে যুদ্ধবিরতি চুক্তি হয়। কিন্তু এরপরও নিরীহ ফিলিস্তিনীদের হত্যা করেই চলেছে ইহুদীবাদী ইসরাইল।

Facebook Comments Box