আহাদ (রবিবার), ২২ মে ২০২২

পুতিনের সমর্থনে সার্বিয়ার রাজধানীতে র‌্যালি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:রুশপন্থি বহুসংখ্যক বিক্ষোভকারী দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের দেশ সার্বিয়ার রাজধানী বেলগ্রেডে বিক্ষোভ করেছেন। মস্কো ও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমর্থনে অনুষ্ঠিত রোববারের (১৩ মার্চ) এই বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীরা ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযানের প্রতি তাদের সমর্থন ব্যক্ত করেন। সোমবার (১৪ মার্চ) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিক্ষোভে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের হাতে সার্বিয়া ও রাশিয়ার পতাকা ছিল। এছাড়া বিক্ষোভকারীদের বেশ কিছু যানবাহনে জেড অক্ষর আঁকা ছিল। যা ইউক্রেনে সামরিক অভিযানে অংশ নেওয়া রুশ সামরিক যানবাহনে দেখা গেছে এবং এরপরই এই প্রতীক ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের প্রতীক হয়ে উঠেছে।

রাশিয়াপন্থি এই বিক্ষোভটি সার্বিয়ার একটি কট্টর-ডানপন্থি গ্রুপ আয়োজন করেছিল বলে শোনা যাচ্ছে। এর আগে গত ৪ মার্চ হাজার হাজার সার্বিয়ান নাগরিক রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং রাশিয়ার সমর্থনে প্রকাশ্যে বেলগ্রেডের রাস্তায় নেমেছিলেন। এর দু’দিন পর সেখানে একটি বড় যুদ্ধবিরোধী সমাবেশ হয়।

অবশ্য মস্কোর পক্ষে বিক্ষোভ হলেও ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের নিন্দা করে জাতিসংঘের একটি প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছে সার্বিয়া। তবে মস্কোর বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা করেছে এমন দেশগুলোর তালিকা ক্রমেই বাড়লেও সার্বিয়া এখনও তাতে যোগ দেয়নি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোরে ইউক্রেনে হামলা শুরু করে রাশিয়ান সৈন্যরা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ ও সমুদ্রপথে ইউক্রেনে এই হামলা শুরু করে। একসঙ্গে তিন দিক দিয়ে হওয়া এই হামলায় ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পড়েছে বৃষ্টির মতো।

সর্বাত্মক হামলা শুরুর পর এক সপ্তাহের মধ্যেই পূর্ব ইউরোপের এই দেশটির বহু শহর কার্যত ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর’র তথ্য অনুযায়ী, ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর প্রাণ বাঁচাতে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন ২০ লাখ ইউক্রেনীয়।

Facebook Comments Box