সাবত (শনিবার), ২২ জুন ২০২৪

পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাসে ভেজালমুক্ত খাদ্যের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাসে ভেজালমুক্ত খাদ্যের দাবি জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে খাদ্যে ভেজালকারীদের জাতীয় শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করার দাবি জানিয়েছে সামাজিক সংগঠন ন্যাশনাল ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি (এনএফএস)।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাসে ভেজালমুক্ত খাদ্য চাই’ শিরোনামে আয়োজিত মানববন্ধনে সংগঠনের সদস্যরা এ দাবি করেন।

মানববন্ধেনে সংগঠনের সদস্যরা বলেন, খাদ্যে ভেজাল জাতীয় সমস্যা হিসেবে দেখতে হবে। যারা খাদ্যে ভেজাল দেয় তারা দেশ-জাতির শত্রু। নিরাপদ খাদ্য মানুষের মৌলিক অধিকার। যারা খাদ্যে ভেজাল করে তারা মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করছে। দিন-দিন খাদ্যে ভেজাল মিশিয়ে বীরের জাতিকে রুগ্ম জাতিতে পরিণত করছে। ভেজাল খেয়ে নানা ধরণের রোগে আক্রান্ত হচ্ছে দেশের মানুষজন। পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাস, সিয়াম সাধনার মাস। আমরা আশা করবো রমাদ্বান শরীফ মাসে ব্যবসায়ীরা খাদ্যে ভেজাল দেওয়া থেকে বিরত থাকবে।

এসময় সংগঠনের সভাপতি গণবন্ধু রাহাত হুসাইন বলেন, ফুটপাত থেকে শুরু করে অভিজাত হোটেল রেস্টুরেন্ট বা নামিদামি ব্রান্ডের পণ্যও এখন ভেজালমুক্ত নয়। ভেজাল খাদ্য খাওয়ার ফলে দেশে হেপাটাইটিস, কিডনি, লিভার ও ফুসফুস সংক্রমিত রোগীর সংখ্যাও দিন দিন বেড়ে চলেছে। ভেজাল প্রতিরোধে প্রতিনিয়ত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে হবে। খাদ্যে ভেজালকারী ব্যক্তি- প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করতে হবে। খাদ্যে ভেজালকারীদের কোনো প্রকার ছাড় না দিতে আমরা প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ করছি।

ভেজালকারীদের দৌরাত্ম্য বন্ধ করতে হবে। ভেজালকারীদের মূলোৎপাটনে সরকারের পাশাপাশি জনসাধারণকেও সচেতন হতে হবে। জনগণ যদি সচেতন হয় তাহলে আমাদের সমাজে কেউ খাদ্যে ভেজাল দিতে পারবে না। পবিত্র রমাদ্বান শরীফ মাসে শিক্ষা নিয়ে ব্যবসায়ীরা খাদ্যে ভেজাল দেওয়া থেকে বিরত থাকুক, এটাই আমাদের কাম্য।

Facebook Comments Box