ইসনাইন (সোমবার), ০৫ ডিসেম্বর ২০২২

জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য নেয়া হবে চোখের মণির ছবি

এবার জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) স্মার্টকার্ড পাওয়ার জন্য দেশের প্রায় ১০ কোটি ভোটারকে নতুন করে আঙুলের ছাপ দেয়ার পাশাপাশি দিতে হবে চোখের মণি বা কনীনিকার ছবিও।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ সাংবাদিকদের বলেন, স্মার্টকার্ড ছাপানোর কাজ চলছে। এটি যখন বিতরণ শুরু হবে তখন নাগরিকদের দশ আঙুলের ছাপ ও চক্ষুর কনীনিকার ছবি দিয়ে তা সংগ্রহ করতে হবে। কারণ এনআইডির তথ্যভাণ্ডারে নাগরিকদের হাতের বৃদ্ধাঙুল ও তর্জনীর ছাপ রয়েছে। আগামীতে যাতে কোনো সমস্যা না হয়, এজন্য নতুন করে প্রত্যেক ভোটারের দুই হাতের দশ আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করা হবে।

নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ও সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহউদ্দিনও একই পরিকল্পনার কথা জানান। তিনি বলেন, প্রকল্পের মেয়াদ হচ্ছে ২০১৭ সালের জুন মাস পর্যন্ত। ওই সময়ের মধ্যেই স্মার্টকার্ড ছাপা ও বিতরণ শেষ করতে হবে। গত অক্টোবর মাস থেকে ১০টি মেশিনে এনআইডির স্মার্টকার্ড ছাপানোর কাজ চলছে। প্রতিদিন প্রায় ৪০ লাখ কার্ড ছাপানোর ক্ষমতা রয়েছে এসব মেশিনের। পর্যাপ্ত পরিমাণ কার্ড ছাপানোর আগে বিতরণ শুরু করা ঠিক হবে না। কারণ, কোন্ এলাকার নাগরিকরা এ কার্ড পেল আবার কোন্ এলাকার নাগরিকরা পেলো না —এ নিয়ে গণ্ডগোল হতে পারে।

 জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন-২০১০-এ বলা হয়েছে, জাতীয় পরিচয়ের জন্য একজন নাগরিকের বায়োমেট্রিক্স ফিচার— যথা আঙুলের ছাপ, হাতের ছাপ, তালুর ছাপ, আইরিশ বা চোখের কনীনিকা, মুখাবয়াব, ডিএনএ, স্বাক্ষর ও কণ্ঠস্বর সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে হবে। কিন্তু এ কাজের অনেকটাই বাকি রয়েছে। স্মার্টকার্ড বিতরণ ও প্রস্তুত করতে ফরাসি কোম্পানি অবারথু টেকনোলজির সঙ্গে চুক্তি করেছে নির্বাচন কমিশন। কোম্পানিটি ২০১৭ সালের জুনের মধ্যেই ১০ কোটি ভোটারের হাতে স্মার্টকার্ড তুলে দেবে। এতে ৭৯৬ কোটি ২৬ লাখ টাকা ব্যয় হবে।
Facebook Comments Box