সাবত (শনিবার), ২২ জুন ২০২৪

ইসরাইলের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গাজায় গেল মে মাসের সংঘাতে। ইসরাইলি বাহিনীর বিরুদ্ধে বেসামরিক নাগরিক হত্যাসহ যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) এক তদন্ত প্রতিবেদনে এ অভিযোগ আনে সংস্থাটি।

একইসঙ্গে ১১ দিনব্যাপী ওই সংঘাতে হামাসের বিরুদ্ধেও বেসামরিক নাগরিক হত্যার অভিযোগ এনেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই মানবাধিকার সংস্থা। আর ইসরাইলি বাহিনীর হেফাজতে এক ফিলিস্তিনিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

গেল মে মাসে গাজায় ১১ দিনব্যাপী ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘাতে ইসরাইলি বাহিনী এবং গাজার নিয়ন্ত্রণকারী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) এক তদন্ত প্রতিবেদনে এ অভিযোগ করে সংস্থাটি। প্রতিবেদনে বলা হয়, ১১ দিনের ওই সংঘাতে ইসরাইলি বাহিনীর অন্তত ৩টি হামলায় ৬২ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। এসব হামলার স্থলের আশেপাশে কোনো সামরিক উপস্থিতি কিংবা হামাসের আস্তানার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

যদিও ইসরাইলি সেনাবাহিনীর দাবি, গাজায় কেবল হামাসের অবস্থান লক্ষ্য করেই হামলা চালিয়েছে তারা।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ইসরাইলি ভূখণ্ড লক্ষ্য করে হামাসের ছোড়া অন্তত সাড়ে ৪ হাজার রকেট হামলার শিকার হন মূলত বেসামরিক নাগরিকরাই।

এরইমধ্যেই, গাজায় ইসরাইলি বাহিনীর সাম্প্রতিক বিমান হামলাকে কেন্দ্র করে ফিলিস্তিনের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই, ইসরাইলি বাহিনীর হেফাজতে এক ফিলিস্তিনিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

মৃত ওই ফিলিস্তিনির পরিবারের দাবি, কারাগারে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তাকে বেধড়ক পিটিয়েছে ইসরাইলি সেনারা।

মৃত্যুর পর তার ছবি ও আটককৃত অন্যান্য ব্যক্তির বক্তব্যের ভিত্তিতে এমন অভিযোগ করা হয় বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

গেল ২৩ জুলাই পশ্চিম জেরুজালেমের মস্কাবিয়া বন্দিশিবিরে আবু ইউসুফ আল-খাতিব আল-তামিমি নামে ৪৩ বছর বয়সী ওই ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয় বলে জানানো হয়। ৪ সন্তানের বাবা আল-তামিমি অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমের শুয়াফাত শরণার্থী শিবিরের বাসিন্দা। কয়েক দিন আগে ট্রাফিক আইন ভঙ্গের কারণে তাকে আটক করা হয়েছিল বলে জানা গেছে।

এদিকে ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের হয়ে কাজ করা একটি গুপ্তচরগোষ্ঠীকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী। এ ছাড়াও তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধারের কথাও জানান তারা।

Facebook Comments Box