ইয়াওমুস সাবত (শনিবার), ১৭ এপ্রিল ২০২১

ইরানি তেলে ফের আশা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
এপ্রিলের পরেও ইরান থেকে তেল আমদানির সুবিধা পেতে পারে ভারত-সহ বিশ্বের ছ’টি দেশ।
পরমাণু চুক্তি বাতিল করে ইরানের উপরে নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে আমেরিকা। যদিও সে দেশের তেল কেনার জন্য আটটি দেশকে নভেম্বর থেকে ছ’মাসের জন্য ছাড় দিয়েছিল ওয়াশিংটন। এপ্রিলে সেই সময়সীমা শেষ হচ্ছে। ছাড়ের সময়সীমা ফের বাড়ানো হবে কি না, তা নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে। মার্কিন পরামর্শদাতা সংস্থা ইউরেশিয়ার বিশ্লেষণ, এপ্রিলের পরেও ইরান থেকে তেল আমদানির সুবিধা পেতে পারে ভারত, চিন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া এবং তুরস্ক। তাদের মতে, আন্তর্জাতিক রাজনীতির পরিস্থিতি চিন্তাভাবনা করেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারে আমেরিকা।

এ ব্যাপারে দু’টি ব্যাখ্যা দিয়েছে সংস্থাটি। প্রথমত, প্রথম বার নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর থেকে অশোধিত তেলের দাম প্রায় ২২% কমেছে। টানা কমেছে পেট্রোপণ্যের দামও। এর জেরে অশোধিত তেলের দামে ভারসাম্য আনার লক্ষ্যে ওপেক গোষ্ঠী ও তাদের সহযোগী দেশগুলি রফতানি ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এর জেরে আন্তর্জাতিক বাজারে সম্প্রতি ফের বাড়তে শুরু করেছে অশোধিত তেলের দর। তেলের দাম আরও বাড়ুক, রাজনৈতিক কারণেই তা চাইবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও ইরান থেকে তেলের সরবরাহ একেবারে বন্ধ হয়ে গেলে ঠিক তা-ই হবে। কারণ, ইরান ওপেক গোষ্ঠীর চতুর্থ বৃহৎ তেল সরবরাহকারী। দ্বিতীয়ত, আমেরিকার সঙ্গে চিনের বাণিজ্য যুদ্ধের পারদ তুঙ্গে ওঠার পরে আপাতত সমাধান সূত্র খুঁজছে দু’পক্ষ। এই অবস্থায় চিনের উপর থেকে ইরানি তেলের সুবিধা প্রত্যাহারের ঝুঁকি আমেরিকা না-ও নিতে পারে।

Facebook Comments